ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড পাওয়া পলাতক স্বামী গ্রেপ্তার

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড পাওয়া পলাতক স্বামী গ্রেপ্তার

ছবি: র‌্যাবের সৌজন্যে

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৪:১৩

যৌতুকের জন্য গলাকেটে স্ত্রীকে হত্যা করেছিলেন। আদালতে মৃত্যুদণ্ড হলে ছিলেন পলাতক। অবশেষে ঢাকার কদমতলি থেকে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন। তিনি মিঠামইনের শ্যামপুর গ্রামের আব্দুস সোবহানের ছেলে জিয়া উদ্দিন (৪৩)।

র‌্যাব-১৪ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক স্কোয়ড্রন লিডার মো. আশরাফুল কবির তাকে গ্রেপ্তারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

র‌্যাব কর্মকর্তার বিবরণে জানা যায়, তাড়াইলের হাতকাজলা গ্রামের হারেছ মিয়া তার মেয়ে রেখা আক্তারকে চাচাত ভাইয়ের ছেলে জিয়াউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছিলেন। বিয়ের পর থেকে জিয়াউদ্দিন স্ত্রী নিয়ে শ্বশুর বাড়িতেই থাকতেন। কিছুদিন পরই যৌতুকের জন্য স্ত্রীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু হয়। মেয়ের শান্তির জন্য তাদেরকে হারেছ মিয়া বাড়ির পাশেই নতুন বাড়ি করে করে দেন। এর পরও নির্যাতন বন্ধ হয়নি। অবশেষে ২০০৬ সালের ১৪ জুলাই রাতে রেখাকে জিয়াউদ্দিন দা দিয়ে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় হারেছ মিয়া বাদী হয়ে পরদিন তাড়াইল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি জিয়াউদ্দিনের অনুপস্থিতিতে মৃত্যুদণ্ড ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন।

কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক স্কোয়ড্রন লিডার মো. আশরাফুল কবিরের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল অভিযানে নামে। নারায়ণগঞ্জের আদমজীনগর র‌্যাবের সহায়তায় সোমবার রাতে জিয়াউদ্দিনকে ঢাকার কদমতলি থানাধীন মেরাজনগর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাকে তাড়াইল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

×