তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সদস্য পদে শান্তিগঞ্জ উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে সদস্য প্রার্থী ফারুক আহমদ কোনো ভোট পাননি। অন্তত নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার দেওয়া রেজাল্ট শিট এবং উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণায় এমনটাই বলা হয়েছে। তবে প্রাথী দাবি করেছেন, তিনি ২০৪ ভোট পেয়েছেন। এর আগে তিনি এই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ছিলেন। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

রোববার শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণার সময় ফারুক আহমদ তালা প্রতীকে কোনো ভোট পাননি বলে ঘোষণা দেন শান্তিগঞ্জ উপজেলার দরগাপাশা ও পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসার মো. জাহিদুল ইসলাম। 

ফলাফলে দেখা যায়, দরগাপাশা ইউপি নির্বাচনে ৭ নং ওয়ার্ডে ছয় জন প্রার্থী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এতে আব্দুল কবির (টিউবওয়েল) ১৬৬, মিরাজ উদ্দিন (মোরগ) ১৮১, মোহাম্মদ আলী (ফুটবল) ৪১১, মোহাম্মদ আশরাফুল হক (বৈদ্যুতিক পাখা) ৫৯ ও মো. সুমন মিয়া (ঘুড়ি) ৪৪৩ ভোট পান। তবে ফারুক আহমদ একটি ভোটও পাননি।

রিটার্নিং কর্মকর্তার দেওয়া রেজাল্ট শিট।


প্রার্থী ফারুক আহমদ বলেন, আমি ২০৪ ভোট পেয়েছি। কিন্তু রেজাল্ট শিটে কিভাবে শূন্য ভোট লেখা হলো সেটা বুঝতে পারছি না।  

এই ব্যাপারে দরগাপাশা ও পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসার মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, দরগাপাশা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে তালা প্রতীকে এক সদস্য প্রার্থী কোনো ভোট পাননি। ভোট কেন পাননি তা আমার জানা নেই।