রাজধানীর শেওড়াপাড়া এলাকায় সজীব হোসেন লিঙ্কন নামে এক যুবলীগকর্মী প্রতিবেশীর ছোড়া গুলিতে আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কাফরুল থানার ওসি হাফিজুর রহমান সমকালকে বলেন, গুলি ছোড়ায় অভিযুক্ত ব্যক্তি ও ভুক্তভোগী একই ভবনে থাকেন। আগে থেকেই তাদের মধ্যে ভবনসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে বিরোধ ছিল। এ নিয়ে মামলাও হয়েছে। সেই বিরোধের সূত্র ধরে গুলির ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্তে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

আহত যুবকের খালাতো ভাই সাব্বির আহমেদ সুমন জানান, সজীব স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগের কর্মী। তিনি পূর্ব শেওড়াপাড়ার হাজী আশরাফ আলী স্কুল লাগোয়া ৮৮৭/২ নম্বর ভবনের চতুর্থ তলায় পরিবারের সঙ্গে থাকেন। বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে তিনি বাসার সামনে মোটরসাইকেল রেখে গ্যারেজের দরজা খুলছিলেন। তখন ভবনের দোতলার বাসিন্দা মোহাম্মদ আলী তাকে গুলি করেন। সজীবকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়। দু'টি গুলি তার ডান পা ও একটি গুলি পিঠে লেগেছে। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে ভবনের ফ্ল্যাট নিয়ে ঝামেলা চলছিল।

পুলিশ সূত্র জানায়, সজীব অনলাইনে পণ্য বিক্রির কাজ করেন। এজন্য তিনি প্রায়ই প্রচুর মালপত্র নিয়ে আসেন বাসায়। এ নিয়ে মোহাম্মদ আলীর পরিবারসহ ভবনের অন্য বাসিন্দাদের আপত্তি ছিল। এমন ছোটখাটো আরও কিছু বিষয় নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হতো। তবে সর্বশেষ বৃহস্পতিবারের ঘটনার আগে বাকবিতণ্ডা হয়েছে বলে কোনো পক্ষই দাবি করেনি। পুলিশ গুরুত্বের সঙ্গে ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছে। এরপর প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।