পিরোজপুরে ইন্দুরকানীতে মাদ্রাসাছাত্রী লাবনী আকতার হত্যার এক মাস পর তার দুই মামাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে দুটি পৃথক স্থান থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন লাবনী আকতারের চাচাতো মামা হাফেজ বশির উদ্দিন (৩০) ও মো. হাবিবুল্লাহ জসিম (২৫)।  এর মধ্যে শুক্রবার রাতে উপজেলার কালাইয়া এলাকা থেকে বশির উদ্দিন এবং বৃহস্পতিবার ঢাকার আড়াইহাজার এলাকা থেকে মো. হাবিবুল্লাহ জসিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।  

গ্রেপ্তাররা ইন্দুরকানী উপজেলার কালাইয়া গ্রামের নুরুল ইসলাম শিকদারের ছেলে। গ্রেপ্তার দুইজনকে আসামি করে শনিবার পিরোজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির জানান, স্বাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে  মাদ্রাসাছাত্রী হত্যায়  তার দুই চাচাতো মামাকে এক মাস পর আটক করে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গত ৩০ অক্টোবর  নিহত মাদ্রাসা ছাত্রী লাবনী পার্শ্ববর্তী কালাইয়া গ্রামে  চাচাতো নানা নুরুল ইসলাম সিকদারে বাড়িতে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পাঁচদিন পর ৫ নভেম্বর নুরুল ইসলাম সিকদারের বাড়ির বাগান থেকে হাতের কবজি ও পায়ের গোড়ালি বিচ্ছিন্ন অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।  এ ঘটনায় গত ৫ নভেম্বর লাবনী আকতারের মা ছনিয়া আকতার বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে ইন্দুরকানী  থানায় হত্যা মামলা করেন। এক মাস পর তদন্ত করে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে নিহত লাবনীর দুই মামাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।