ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানা গেটের সামনে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুইপক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ওসিসহ ১০জন আহত হয়েছেন। শনিবার এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে চাপাতি ও দেশীয় অস্ত্রসহ উভয় পক্ষের পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটকরা হলেন মেহেদী হাসান, শাওন, কাউছার, ছুবুর, পাবেল ও রাজিব।

জানা যায়, গত কয়েক মাস ধরে নবীনগর (পঃ) ইউনিয়নের নবীপুর ও পৌর এলাকার আলমনগর গ্রামের যুবকদের মধ্যে  নারী সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছিল। এরই মধ্যে সকালে শাওন নামে এক যুবককে শ্রীরামপুর এলাকায় সিএনজি থেকে নামিয়ে মারধর করার খবর ছড়িয়ে পড়ে।  এ ঘটনার জের ধরে বিকেলে নবীনগর থানা গেইটের সামনে শাওনের মামা কাউসার মিয়ার সাথে আলমনগর গ্রামের রাজিব ও রবিনের  দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। ওই সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ওসি আমিনুর রশিদ, এস আই আজিজুর রহমান শেখ,এসআই মামুনুর রশীদ, মনিরুল ইসলাম, এসআই আশ্রাফুল ইসলামসহ ৮ জন গুরুতর আহত হন। পরে আহতদের চিকিৎসার জন্য নবীনগর সদর হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেও দ্বিতীয় দফায় সংঘর্ষে হয়।

ওসি আমিনুর রশিদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, দুই গ্রামের যুবকদের মধ্যে পূর্ব বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই সময় তিনিসহ চার জন সাব ইন্সপেক্টর আহত হন। এ ঘটনায় চাপাতি ও মোটরসাইকেলসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।