নরসিংদীতে অটোরিকশা চালক কিশোর অন্তর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা ‍পুলিশ।

তারা হলেন, আল-আমিন (৩৬), বকুল মিয়া (৪৫), অহিদুল ইসলাম মাতাব্বর ওরফে সবুজ (২৫), সগীর (৩১) ও সাজ্জাদ ওরফে শাহাদাত (৩২)। পুলিশের দাবি,তারা সবাই আন্তঃজেলা অটোরিকশা ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য। তাদের নামে বিভিন্ন থানায় একাধিক চুরি ও ছিনতাই মামলা রয়েছে। 

সোমবার দুপুরে নরসিংদী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান।

তিনি জানান, নরসিংদীর মাধবদী থানার খিলগাঁও এলাকার কিশোর অন্তর (১৩) পরিবারের হাল ধরতে অটোরিকশা চালাতেন। গত ১ ডিসেম্বর অটোরিকশা নিয়ে বের হয়ে তিনি আর বাড়ি ফিরেননি। তার পরিবার সেদিন মাধবদী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। 

ঘটনার পরদিন ২ নভেম্বর বিকেলে মাধবদী থানার বালাপুর এলাকায় একটি ডোবায় তার লাশ পাওয়া যায়। 

পরে নিহতের পরিবার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মামলার পর পুলিশের একটি আভিযানিক দল সাঁড়াশি অভিযান শুরু করে। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় গত রোববার রাতে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকা থেকে পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেন তারা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান জানান, গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচ জনের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত লোহার রড এবং ছিনতাই করা অটোরিকশা উদ্ধার করা হয়েছে। 


বিষয় : অটোরিকশা কিশোর অন্তর হত্যাকাণ্ড নরসিংদী পুলিশ সুপার কার্যালয় মাধবদী থানা

মন্তব্য করুন