বান্দরবান সদর উপজেলায় সন্তু লারমার জনসংহতি সমিতির এক নেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ

সোমবার সকালে বান্দরবান-চন্দ্রঘোনা সড়কের আমতলি পাড়ার একটি বাগান থেকে পুশেথোয়াই মারমার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত পুশেথোয়াই (৪৭) কুহালং ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চিমিডলু পাড়ার বাসন্দিা অংসাচিং মারমার ছেলে।

তিনি সন্তু লারমা নেতৃত্বধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বান্দরবান জেলা কমিটির সদস্য ও সদর থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এর আগে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের জেলা কমিটির সভাপতিও ছিলেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার রাত ৮টার দিকে ১২ থেকে ১৫ জন যুবক দুটি মাহিন্দ্র করে চিমিডলু পাড়ায় আসে। তারা সেখানে একটি ঘর থেকে পুশেথোয়াইকে তুলে নিয়ে পাড়া থেকে দুই কিলোমিটার দূরে একটি প্রাথমিক বিদ্যলয়ের মাঠে নিয়ে মারধর করে। পরে সেখান থেকে কিছু দূরে একটি সেগুন বাগান এলাকায় তিন থেকে চার রাউন্ড গুলির শব্দ পাওয়া যায়। সকালে আমতলি পাড়া এলাকায় মূল সড়কের পাশে একটি বাগান থেকে মাটিচাপা দেওয়া অবস্থায় পুশেথোয়াইয়ের মরদেহ পাওয়া যায়।

বান্দরবান সদর থানা ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পুশেথোয়াইয়ের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে।