ঝিনাইদহ মহেশপুর উপজেলায় সীমান্তের ওপারে মিকাইল হোসেন (৩০) নামের এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার বাঘাডাঙ্গার জিনজিরা পাড়ার রুহুল আমিনের ছেলে।

রোববার বিকেলে উপজেলার বাগাডাঙ্গা সীমান্ত ভারত অংশে টেংরা খালে তার মরদেহ ভেসে উঠলে নদীয়া জেলার হাঁসখালী থানা পুলিশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত এক সপ্তাহ আগে মিকাইলসহ আরও কয়েকজন গরু কিনতে সীমান্ত পার হয়ে ভারতে যান।

বৃহস্পতিবার রাতে গরু নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার টেংরাখাল ব্রীজ এলাকা দিয়ে তারা ফিরছিলেন। এ সময় নদীয়ার শিলবাড়ি এলাকায় বিএসএফের টহল দলের সামনে পড়লে গুলি  ছুঁড়ে বিএসএফের সদস্যরা। সেসময় অন্যরা পালিয়ে আসলেও নিখোঁজ হন মিকাইল।

এ ঘটনার চার দিন পর রোববার বিকেলে সীমান্তবর্তী টেংরা খালে মিকাইলের মরদেহ ভেসে ওঠে। খবর পেয়ে নদীয়া জেলার হাঁসখালী থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

নেপা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শামসুল আলম বলেন, গত কয়েকদিন আগে ১০/১২ জন যুবক গরু আনতে ভারতে যায়। ফেরার পথে বিএসএফ’র সামনে পড়লে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। মনে হয়, সে সময় বিএসএফের গুলিতে মিকাইল মারা যেতে পারেন।

এ ব্যাপারে বিজিবি ঝিনাইদহের খালিশপুর ৫৮ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল শাহিন আজাদ বলেন, ‘এ ব্যাপারে কোনো তথ্য আমরা পাইনি। খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।’