নাটোরের সিংড়ায় নৌকা প্রতীকে ভোট না দিলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মীদের বাড়িতে থাকতে দেওয়া হবে না বলে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সরকার দলীয় প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

সোমবার এ অভিযোগ করেছেন ডাহিয়া ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, সিংড়ার দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন তার শহরের বাড়ি ছেড়ে ১৫-২০ জনের একটি বাহিনী নিয়ে ডাহিয়ায় অবস্থান নিয়েছেন। আওয়ামী লীগের এই সক্রিয় কর্মী নৌকার প্রার্থী মামুন সিরাজুল মজিদের পক্ষে কোমর বেঁধে নেমেছেন। সাজ্জাদ আচরণবিধি লঙ্ঘন করে ওই ইউপিতে ১৪টি নির্বাচনী অফিস স্থাপন করে এলাকার সাধারণ মানুষদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। হুমকি দিচ্ছেন- ‘নৌকায় ভোট না দিলে কাউকে নিজের বাড়িতে থাকতে দেব না’।

বিদ্রোহী প্রার্থী আরও অভিযোগ করেন, সাজ্জাদ তার কর্মীদের প্রতিনিয়ত মারধর, প্রাণনাশের হুমকি, ঘোড়া প্রতীকের পোস্টার ছিনতাই ও নষ্ট করছেন। এ বিষয়ে রিটার্নিং কর্তকর্তার কাছে একাধিক লিখিত অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার মিলছে না।

তবে সাজ্জাদ এসব অভিযোগকে বানোয়াট ও ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, তিনি শহরে তার বাড়িতেই অবস্থান করছেন। তিনি দলীয় কর্মসূচি ছাড়া ডাহিয়ায় যাননি। আজাদ গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জয়ী হয়েছেন। এবার নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় মানুষ তার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। পরাজয় নিশ্চিত জেনে তিনি মিথ্যাচার করছেন।

এ বিষয়ে নৌকার প্রার্থী মজিদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। রিটার্নিং কর্মকর্তা আমিনুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এটা তদন্তের জন্য থানায় পাঠানো হয়েছে। সিংড়া থানার ওসি নুর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, অভিযোগ তদন্তে কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আগামী ২৬ ডিসেম্বর ডাহিয়াসহ এ উপজেলার ১২ ইউনিয়নে ভোট হবে।