হেফাজতে ইসলামের সাবেক নেতা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলায় সোমবার আরও ৩ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। এদিন নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় অবস্থিত রয়্যাল রিসোর্টের ম্যানেজার নাজমুল হাসান অনি, সুপারভাইজার আবদুল আজিজ পলাশ ও নিরাপত্তাকর্মী রতন বড়াল সাক্ষ্য প্রদান করেন।

নারায়ণগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক নাজমুল হক শ্যামলের আদালতে সাক্ষীরা ঘটনার দিনের আদ্যোপান্ত তুলে ধরেন বলে সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

রিসোর্টের ম্যানেজার জানান, ঘটনার দিন গত ৩ এপ্রিল মামুনুল নামাজ ও খাওয়া-দাওয়ার কথা বলে রিসোর্টে একজন নারীকে নিয়ে আসেন। তিনি রুম ভাড়া ও খাওয়া-দাওয়াসহ আট হাজার টাকার একটি প্যাকেজ নেন।

সুপারভাইজার পলাশ বলেন, বিকাশে বিল পরিশোধ করেন মামুনুল। নিরাপত্তাকর্মী রতন বড়াল বলেন, সাবেক হেফাজত নেতা নিজেই গাড়ি চালিয়ে রিসোর্টে আসেন।

এ মামলায় এর আগে বাদী মামুনুলের কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা প্রথম সাক্ষ্য প্রদান করেন। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি রকিবুজ্জামান জানান, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মামুনুলকে আদালতে হাজির করা হয়। সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে তাকে আবার কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।