বেসরকারি সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের নতুন চেয়ারম্যান মো. মাহবুব-উল-আলম এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী (সিইও) হলেন জাফর আলম। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) ব্যাংকটির পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

মাহবুব-উল-আলম ২১ ডিসেম্বর সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করেছেন। এর আগে তিনি ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব পালন শেষে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৮৪ সালে প্রবেশনারি অফিসার হিসেবে ইসলামী ব্যাংকে যোগদান করেন।

দীর্ঘ ৩৭ বছরের কর্মজীবনে মাহবুব-উল-আলম ইসলামী ব্যাংকের বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও বিভিন্ন শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মাহবুব-উল আলম যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স হাউজ ক্যামব্রিজ ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্সিয়াল অ্যাডভাইজরি কর্তৃক ওয়ার্ল্ড ইসলামিক ব্যাংকিংয়ে ‌বেস্ট ইমার্জিং সিইও ২০১৮ এবং সিইও অব দ্য ইয়ার-২০১৯ অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। 

মাহবুব-উল-আলম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মার্কেটিং বিভাগ থেকে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং ফ্রান্সের ইউরোপিয়ান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যাংকিংয়ে প্রফেশনাল ডক্টরাল সার্টিফিকেট লাভ করেন। পেশাগত বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও রেমিট্যান্স মার্কেটিংয়ের জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, জার্মান, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশ সফর করেন।

এদিনই সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী হিসেবে যোগদান করেছেন জাফর আলম। তিনি ইতোপূর্বে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৯২ সালে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডে প্রবেশনারি অফিসার হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে তিনি ব্যাংকিং ক্যারিয়ার শুরু করেন। দীর্ঘ ৩০ বছরের পেশাগত জীবনে তিনি রাজধানী ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ ছয়টি শাখার ব্যবস্থাপকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ইসলামী ব্যাংকের মানবসম্পদ উইংয়ের প্রধান এবং ব্যাংকের প্রথম চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস অফিসার (সিএইচআরও) ছিলেন।

ইসলামী ব্যাংক ট্রেনিং অ্যান্ড রিসার্চ একাডেমি (আইবিটিআরএ) থেকে ইসলামিক ব্যাংকিংয়ে ডিপ্লোমা (ডিআইবি) সনদপ্রাপ্ত জাফর আলম দীর্ঘ কর্মজীবনে ব্যবসায়িক পরিকল্পনা, গ্রাহকসেবার মানোন্নয়ন, বিক্রয় ও বিপণন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, প্রযুক্তির অগ্রগতি ও বিনিয়োগসহ বিভিন্ন বিষয়ে কর্মশালা ও সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন। তিনি প্রশিক্ষণ ও পেশাগত প্রয়োজনে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।