কক্সবাজারের মহেশখালীতে চুলে দিতে নারিকেল তেল চাওয়ায় এক গৃহবধূকে মাথা ন্যাড়া শেষে গৃহবন্দি করে রাখার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। রোববার এই ঘটনায় গৃহবধূর ভাই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনাটি ১৫ দিন আগে উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে ঘটে। তবে প্রকাশ্যে আসে শনিবার। পরে শনিবার রাতে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে বাবার বাড়ি নিয়ে যায় তার পরিবারের লোকজন।  

ওই গৃহবধূর ভাই আবদু শুক্কুর জানান, ৪ বছর আগে তার বোনের সঙ্গে কালারমারছড়া ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের ছিদ্দিক আহমদের ছেলে বাহার উদ্দীনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য তার বোনের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।  এই বিষয়ে বেশ কয়েকবার স্থানীয়ভাবে সালিশও হয়। গত ১৫ দিন আগে তার বোন চুলে দিতে শাশুড়ির কাছে নারিকেল তেল চায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার বোনের মাথা ন্যাড়া করে দিয়ে নির্যাতন চালায়। খবর পেয়ে শনিবার তিনিসহ তার পরিবারের লোকজন ছেলের বাড়িতে যান।

তিনি আরও জানান, সেখানে গিয়ে দেখতে পান তার বোনকে মাথা ন্যাড়া করে দিয়ে রুমে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। কারো সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি। পরে রাতে তার বোনকে উদ্ধার করে তারা বাড়িতে নিয়ে আসেন। ওই ঘটনায় তিনি রোববার দুপুরে মহেশখালী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

তবে গৃহবধূকে নির্যাতনের ব্যাপারে ছেলের পরিবার বলছে, তাকে কোনো নির্যাতন করা হয়নি। তাদের ফাঁসাতে এই অভিযোগ আনা হয়েছে। 

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল হাই জানান, গৃহবধূ নির্যাতনের একটি অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। তদন্ত করে এই ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।