সড়ক সংস্কারে ‘গতি’ আনতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) বহরে যোগ করা হলো অত্যাধুনিক প্রযুক্তির গাড়ি। রাস্তায় গর্ত বা ফাটল দেখা দিলে এ গাড়ির মাধ্যমে তাৎক্ষণিক মেরামতের ফলে আরও বড় গর্ত বা ফাটল থেকে রাস্তাকে রক্ষা করা যাবে। 

রোববার নগরের সিআরবির সাত রাস্তার মোড়ে অত্যাধুনিক ট্রাকের সাহায্যে সড়ক সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন— চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, নির্বাহী প্রকৌশলী বিপ্লব দাশ, মির্জা ফজলুল কাদের, জয়সেন বড়ুয়া, তৌহিদুল আলম, পরিচ্ছন্নতা পরিদর্শক প্রণব শর্মা, সিবিএ সভাপতি ফরিদ আহমদ, সহসভাপতি জাহেদুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

উদ্বোধন শেষে সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, সড়ক সংস্কারে আধুনিক প্রযুক্তির রোড মেইনটেন্যান্স ট্রাক ব্যবহারের ফলে সময় ও অর্থ দুটিই সাশ্রয় হবে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন ট্রাকগুলো অত্যন্ত জনপ্রিয়। বর্ষা মৌসুমেও রাস্তা মেরামতে কোনো ধরনের অসুবিধা হবে না। এ ট্রাক ব্যবহারের ফলে আলাদা অ্যাসফল্ট প্ল্যান্টের প্রয়োজন হবে না। তাৎক্ষণিক তৈরি করা যাবে মিকশ্চারও।

মেয়র আরও বলেন, রোড মেইনটেন্যান্স ট্রাকগুলোতে উন্নতমানের ইমালশন ব্যবহারের ফলে কাজের গুণগত মান বজায় থাকবে এবং দীর্ঘস্থায়ী হবে। করপোরেশন বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ জলজট থেকে পরিত্রাণে আধুনিক প্রযুক্তির ওপর জোর দিচ্ছে। নগরে ৫৭টি খাল ও ৬৫০ কিলোমিটার নালা পরিষ্কার করবে চসিক। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে ৫৯৮টি নালার তালিকা নিয়ে মেগা প্রকল্পের বাইরে থাকা খাল ও বড় নালার তালিকা চেয়ে সিডিএকে চিঠি দিচ্ছে চসিক। এ তালিকা পাওয়ার পর কাজের দ্বৈততা দূর হবে। খাল ও নালার পানি চলাচলে স্বাভাবিক গতি ফিরিয়ে আনা হবে। 

এ সময় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত অপারেটর, চালক ও মেকানিকদের রোড মেইনটেন্যান্স ট্রাকগুলোর যথাযথ ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করেন মেয়র।