ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

যুবলীগ নেতাকে থানায় নিয়ে ইজারামূল্য আদায়

যুবলীগ নেতাকে থানায়  নিয়ে ইজারামূল্য আদায়

আপেল সরকার

 বগুড়া ব্যুরো

প্রকাশ: ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | ২৩:০২

বগুড়ার শিবগঞ্জে হাটবাজারের ইজারামূল্য পরিশোধ না করায় এক যুবলীগ নেতাকে আটক করে উপজেলা প্রশাসন। থানায় নেওয়ার পর তড়িঘড়ি করে পাওনার ২০ লাখ টাকা রাষ্ট্রের কোষাগারে জমা দেন মোকামতলা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আপেল সরকার। এ সময় বাকি টাকা ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে পরিশোধের মুচলেকাও দেন তিনি। এতে আশ্বস্ত হয়ে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার।
উপজেলা প্রশাসন জানায়, ১৪৩০ বঙ্গাব্দের ১ বৈশাখ থেকে ওই বঙ্গাব্দের ৩০ চৈত্র পর্যন্ত এক বছর মেয়াদে ১ কোটি ৫২ লাখ ৫০ হাজার ২৫০ টাকায় মোকামতলা হাটবাজার ইজারা নেন যুবলীগ নেতা আপেল। ওই সময় তিনি ইজারামূল্যের ৭০ লাখ ৪৯ হাজার ৫০০ টাকা পরিশোধ করেন। বাকি ৮২ লাখ ৭৫০ টাকা ১৪২৯ বঙ্গাব্দের ৩০ চৈত্র মাসের মধ্যে অর্থাৎ চলতি বছরের ১৩ এপ্রিলের মধ্যে পরিশোধ করার কথা ছিল। বারবার তাগিদ দেওয়ার পরেও তিনি তা পরিশোধ করেননি। এ বিষয়ে একাধিকবার নোটিশ পাঠিয়েও সাড়া না পেয়ে গতকাল সকালে উপজেলার জয়পুরহাট সড়ক থেকে তাঁকে আটক করেন ইউএনও তাহমিনা আক্তার। বিকেলের দিকে আপেল ভুল স্বীকার করে ইজারামূল্যের ২০ লাখ পরিশোধ করেন এবং বাকি ৬২ লাখ ৭৫০ টাকা পরিশোধের জন্য মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান।
এই বিষয়ে জানতে যুবলীগ নেতা আপেল বলেন, হাটবাজার ইজারার কারবার করতে গেলে কিছু বাকি পড়েই। আমারও পড়েছিল। কিন্তু আমাকে বারবার নোটিশ পাঠালেও সেই টাকা পরিশোধ করতে পারছিলাম না। সর্বশেষ চিঠি পাওয়ার পর বুধবার ইউএনওর সঙ্গে দেখা করে সময় চেয়েছিলাম। এরপরও তিনি এলাকায় পুলিশ নিয়ে আমাকে আটক করলেন। 
শিবগঞ্জ থানার ওসি আবদুর রউফ বলেন, যুবলীগ নেতা আপেলকে থানায় এনেছিল উপজেলা প্রশাসন। পরে আইনগতভাবে টাকা ও মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান তিনি। 
ইউএনও তাহমিনা আক্তার বলেন, বারবার নোটিশ পাঠিয়ে ইজারামূল্য পরিশোধের কথা বলা হলেও তোয়াক্কা করেননি যুবলীগ নেতা আপেল। বাকি পাওনা ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে পরিশোধ না করলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

আরও পড়ুন

×