ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

রিজওয়ানের সাফল্যে উচ্ছ্বাস

রিজওয়ানের সাফল্যে উচ্ছ্বাস

.

 দেবীগঞ্জ (পঞ্চগড়) সংবাদদাতা

প্রকাশ: ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | ২২:১২

যুব এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন দলের অন্যতম সদস্য চৌধুরী মোহাম্মদ রিজওয়ান। ফাইনালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে তাঁর ইনিংস ছিল ৬০ রানের, যা ম্যাচে ব্যক্তিগত পর্যায়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান। আসরজুড়ে ৮৪ স্ট্রাইক রেটে ১২৭ রান করেছেন রিজওয়ান। ব্যাটিংয়ের সঙ্গে বোলিংয়েও সাফল্য দেখিয়েছেন। বল হাতে তুলে নিয়েছেন ৩ উইকেট। টুর্নামেন্টে রিজওয়ানের এমন সাফল্যে আনন্দের জোয়ার বইছে পঞ্চগড়ে।  
রিজওয়ানের বাড়ি পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার পামুলী ইউনিয়নের কালুরহাটে। বাবা চৌধুরী মো. তানভীর যোবায়ের হোসেন চৌধুরী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান। মা সুলতানা মাহফুজুন নাহার স্কুল শিক্ষক। 
রিজওয়ানের ছেলেবেলার তাঁকে খণ্ডকালীন কোচিং করিয়েছেন স্থানীয় কোচ সাজু ইসলাম। তিনি বলেন, রিজওয়ান খুবই পরিশ্রমী। ক্রিকেট তাঁর শক্তির জায়গা, ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংয়েও ভালো সে। রিজওয়ান পঞ্চগড়বাসীর গর্ব। সে একদিন জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করবে বলে তিনি আশাবাদী। 
২০২০ সালের যুব বিশ্বকাপ জয়ী শরিফুল ইসলামও দেবীগঞ্জের সন্তান। একই উপজেলা থেকে দুই ক্রিকেটার দেশের প্রতিনিধিত্ব করায় উচ্ছ্বাস জানান দেবীগঞ্জ পৌর মেয়র আবু বকর সিদ্দীক। তিনি বলেন, একই উপজেলা থেকে দুইজন ক্রিকেটার বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছে। এটি অভাবনীয় ও গর্বের বিষয়। 

রিজওয়ানের সাফল্যে তাদের বাড়িতে চলছে উৎসবের আমেজ। ক্রিকেটারের বাবা চৌধুরী মো. তানভীর যোবায়ের হোসেন বলেন, ছেলের সাফল্যের পেছনে সব থেকে বেশি অবদান ওর মায়ের। এ ছাড়া ক্রিকেট একাডেমির শিক্ষকদের সহযোগিতা এবং দিকনির্দেশনায় আজ সে বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারছে। 
দুবাইয়ে অবস্থানরত রিজওয়ান মোবাইল ফোনে সমকালকে বলেন, দেশের মানুষের দোয়া ছিল। এ জন্যই এশিয়া কাপে বিজয় সম্ভব হয়েছে। জানুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় যুব বিশ্বকাপেও যেন দেশের সুনাম বয়ে আনতে পারেন সে জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন এই ক্রিকেটার। 

আরও পড়ুন

×