ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

ফিরলেন সাদিক, শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস

ফিরলেন সাদিক, শক্ত  প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস

.

 বরিশাল ব্যুরো 

প্রকাশ: ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | ২৩:০৫

বরিশাল-৫ (মহানগর-সদর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর প্রার্থিতা বাতিল করে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। এর ফলে নির্বাচনে অংশ নিতে তাঁর আর কোনো বাধা নেই। মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদিক আব্দুল্লাহ প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় নির্বাচনী দৃশ্যপট বদলে গেছে। বরিশাল-৫ আসনে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

দ্বৈত নাগরিকত্বের অভিযোগে সাদিক আবদুল্লাহর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিল ইসি। ওই সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তিনি হাইকোর্টে রিট করেন। গতকাল সোমবার ইসির সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। সদ্য বিদায়ী মেয়র সাদিক দলের মনোনয়নবঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। এ আসনে নৌকার প্রার্থী পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম এমপি। সাদিক আবদুল্লাহ ‘ঈগল’ প্রতীক চেয়েছেন। তবে সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রতীক বরাদ্দ না পাওয়ায় তাঁর পক্ষে প্রচার শুরু হয়নি।

বরিশাল আওয়ামী লীগ দুই গ্রুপে বিভক্ত। একটির নেতৃত্বে সাদিক আবদুল্লাহ এবং অপরটির নেতৃত্বে জাহিদ ফারুক শামীম এমপি ও সাদিকের চাচা সিটি মেয়র আবুল খায়ের আবদুল্লাহ। নির্বাচনী এলাকা মহানগর ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি সাদিকের নিয়ন্ত্রণে। এ কারণে সাংগঠনিকভাবে তিনি যথেষ্ট শক্তিশালী। 

ইসিতে প্রার্থিতা বাতিলের পর চুপসে ছিলেন সাদিকের সমর্থকরা। গতকাল দুপুরে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার খবরে উল্লাসে ফেটে পড়েন তারা। খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে কালীবাড়ি সড়কে সাদিকের বাসায় জড়ো হন নেতাকর্মীরা। সাদিক আবদুল্লাহ ঢাকায় রয়েছেন বলে জানা গেছে। অপরদিকে নৌকার সমর্থনে সন্ধ্যার পর সব ওয়ার্ড ও ইউনিয়নে মিছিল হয়েছে। 

সাদিকপন্থি নেতা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আনোয়ার হোসাইন বলেন, সাদিক আবদুল্লাহ প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় সত্যের জয় হয়েছে। এখন মাঠের লড়াইয়ে প্রমাণ হবে বরিশালে কার জনপ্রিয়তা বেশি।

নৌকা প্রার্থীর ঘনিষ্ঠজন মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন বলেন, আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জাহিদ ফারুক 
শামীম সুপ্রিম কোর্টে আপিল করবেন। তিনি আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু করবেন আজ মঙ্গলবার।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম সন্ধ্যায় সমকালকে বলেন, সাদিক আবদুল্লাহ প্রার্থিতা ফিরিয়ে দেওয়ার আদেশসংক্রান্ত কাগজপত্র তিনি পাননি। কাগজপত্র পাওয়ার পর সেটি যাচাই-বাছাই এবং নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে পরামর্শ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন। এর আগে তাঁকে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে না।
 

আরও পড়ুন

×