ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শব্দযন্ত্রণায় জব্দ জীবন ঠেলে গভীর অরণ্যে

শব্দযন্ত্রণায় জব্দ জীবন ঠেলে গভীর অরণ্যে

গজারি বনের ভেতর গাছ দেখছেন নিসর্গপ্রেমীরা। শুক্রবার গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বিন্দুবাড়ি এলাকায় সমকাল

গাজীপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ: ৩০ ডিসেম্বর ২০২৩ | ০০:৩১

শহরের কোলাহলে কাটে তাদের নিত্যদিন। শব্দযন্ত্রণায় জব্দ হওয়া জীবন ঠেলে তাই তারা এসেছিলেন গভীর অরণ্যে। পরিচিত হন গজারি বনে বেড়ে ওঠা চেনা-অচেনা উদ্ভিদ, লতা-গুল্মের সঙ্গে। এটি ছিল পরিবেশ ও প্রকৃতিবিষয়ক সংগঠন তরুপল্লবের ৩৫তম আয়োজন। 
গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টায় ঢাকার ৬০ নিসর্গপ্রেমীর উদ্ভিদ চেনার যাত্রা শুরু হয় গাজীপুরের শ্রীপুরে। উপজেলার বিন্দুবাড়ি এলাকায় গড়ে তোলা মানমন্দিরের আশপাশে গজারি বনের ভেতর সময় কাটান দুপুর দুইটা পর্যন্ত।
মৃত্যুঞ্জয় রায়ের নেতৃত্বে আগত নিসর্গপ্রেমীরা বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশাভেজা ঘাস মাড়িয়ে গজারি বনের গভীরে ঢুকে পড়েন। তিনি একের পর এক পরিচয় করিয়ে দেন কুমারিলতা, বনচালতা, লতা পলাশ, বাজনা, কুটচি, কুম্ভী, মনকাঁটা, তেওড়া কাঁটা, অনন্তমূল, ছেচড়া বরই কিংবা বনডুমুরের সঙ্গে। 
প্রকৃতির সান্নিধ্যে এ ভ্রমণে অন্তত ৪০ প্রজাতির উদ্ভিদের সঙ্গে নিগর্সপ্রেমীদের পরিচয় করানো হয় বলে জানান তরুপল্লবের সাধারণ সম্পাদক ও লেখক মোকারম হোসেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের চারপাশে কত প্রজাতির উদ্ভিদই তো আছে। এর মধ্যে ক’টা উদ্ভিদ আমরা চিনি? অযত্ন-অবহেলায় বনের ভেতর অসংখ্য গাছ গজিয়ে রয়েছে। এসব অচেনা গাছের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতেই এ আয়োজন।’ তিনি জানান, আগেও ‘গাছ দেখা– গাছ চেনার জন্য ৩৪ বার এমন আয়োজন করেছেন। এতে দেশের নানা প্রান্তের নিসর্গপ্রেমীরা অংশ নিয়েছেন।
 

আরও পড়ুন

×