ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সন্ত্রাসমুক্ত ফরিদপুর গড়তে ঈগলে ভোট দিন

নির্বাচনী সভায় এ. কে. আজাদ

সন্ত্রাসমুক্ত ফরিদপুর গড়তে ঈগলে ভোট দিন

সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নে নির্বাচনী সভায় বক্তব্য দেন স্বতন্ত্র প্রার্থী এ. কে. আজাদ। ছবি: সমকাল

ফরিদপুর অফিস

প্রকাশ: ৩০ ডিসেম্বর ২০২৩ | ২১:১১

ফরিদপুর-৩ আসনে ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদ বলেছেন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও সন্ত্রাসমুক্ত জনপদ গঠনের জন্য সবাই ঈগল প্রতীকে ভোট দিন। আমি নির্বাচিত হলে এলাকার জনগোষ্ঠীর শিক্ষার মানোন্নয়নেও কাজ করব।

আজ শনিবার বিকেলে সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নে নির্বাচনী সভায় তিনি এ কথা বলেন। আলিয়াবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক ডাব্লুর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শামসুল হক ভোলা মাস্টার, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা ও সাবেক পৌর মেয়র শেখ মাহতাব আলী মেথু, আওয়ামী লীগ নেতা ইদ্রিস আলী, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি নাজমুল হাসান খন্দকার লেভি, আলিয়াবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি শেখ সাদী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ‘আমরা নৌকার বিপক্ষে নই। তবে এবার আমরা নৌকাকে ঘাটে ভিড়িয়ে রাখব। কারণ, এখানে যিনি নৌকার প্রার্থী, তিনি নির্বাচিত হওয়ার আগেই এ জনপদকে সন্ত্রাসের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছেন। আমরা সন্ত্রাসীদের কবল থেকে মুক্তি চাই।’

এ. কে. আজাদ বলেন, আলিয়াবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সভাপতি করা হয়েছে এমন একজন ব্যক্তিকে, যিনি মানুষের মাথা কেটে ফুটবল খেলেছেন। তিনি এই সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করায় জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পুলিশকে ধন্যবাদ জানান। একই সঙ্গে অন্যান্য সন্ত্রাসীকেও গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গীকার হচ্ছে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। কিন্তু যেভাবে নির্বাচনের আগে সন্ত্রাস করা হচ্ছে, তাতে সাধারণ মানুষ ভোটকেন্দ্রে যেতেই ভয় পাচ্ছে। আমাদের কর্মীদের কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। নির্বাচনের ক্যাম্প ভেঙে দিচ্ছে। ফরিদপুরের জনগণ ৭ জানুয়ারি ভোটের মাধ্যমে এর উপযুক্ত জবাব দেবে। 

শায়মা আজাদের সভা

নির্বাচনী প্রচারে নেমে এ. কে. আজাদের স্ত্রী শায়মা আজাদ শাম্মি বলেছেন, এখানে ভোটারদের কেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তবে নারীরা ভয়কে জয় করেই ভোটের মাঠে যাবে। 

বিকেলে ডিক্রিরচর ইউনিয়নের আইজদ্দিন মাতুব্বরের ডাঙ্গি এলাকায় ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান মিন্টুর বাড়িতে মহিলা সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চেয়েছেন বলেই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন এ. কে. আজাদ। 

এ সময় ডিক্রিরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা নুসরাত রাসুল তানিয়া বক্তব্য দেন।

এর আগে সদরের গেরদা ইউনিয়নের বোকাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক আইভী মাসুদ, শায়মা আজাদের খালা মাসুদা বেগম বুলু, ছোট বোন শায়লা ইসলাম, রিয়াদ মিয়া, মো. মাসুম, গোলাম মোস্তফা খোকন, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

আরও পড়ুন

×