নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, ‘আমাকে যদি রাস্তার একটা ভিখারিও সমর্থন দেয়, সেটা আমি মাথা পেতে নেব। সরকারি দলের মধ্যে যে আত্মকোন্দল, বিবাদ, মুখোমুখি অবস্থান, এতে আমার কোনো লস নেই। সবাই আমার সমর্থনে এগিয়ে আসছে।’ তিনি বলেন, ‘রাজনীতি পরের বিষয়, আগে এটা আমাদের নিজস্ব এলাকা, নিজের শহর। সংখ্যালঘু বলতে আমি কিছু বুঝি না। সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। তবে মসজিদ মন্দিরের জায়গা দখল হয়েছে বলে নারায়ণগঞ্জবাসীর একটা অভিযোগ আছে।’

রোববার সকালে ১২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ চালানোর সময় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

তৈমূর বলেন, ‘আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, বাড়িতে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে। এর মাধ্যমে বিভিন্ন রকমের আতঙ্ক সৃষ্টি করা হচ্ছে। তবে আমি নারায়ণগঞ্জের জনগণকে আশ্বস্ত করতে চাই। নারায়ণগঞ্জের ইতিহাস আন্দোলন সংগ্রামের ইতিহাস। এ নারায়ণগঞ্জে কখনও সরকারি দলের প্রার্থী পাস করে না। বিএনপির আমলেও সরকারি দলের প্রার্থী পাস করেনি। আইভী যে ২০১১ সালে পাস করেছেন, তখন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে পাস করেছে। দল তখন কেন আমাকে বসিয়ে দিয়েছে, তা তো জানি না। তবে মওদুদ সাহেব এসে বলেছিলেন- শামীম ওসমানকে ফেল করানোর জন্য তৈমূরকে বসিয়ে দিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের যে কোনো ঘটনায় শামীম ওসমান ও আইভী কেন যেন আলোচনায় চলে আসেন। এবারও তাই হয়েছে। তাদের মধ্যে আত্মকোন্দল, বিবাদ চলছে। তাতে আমার কিছু না।’

তৈমূর আরও বলেন, ‘আমি এক টকশোতে সাংবাদিকদের জিজ্ঞেস করেছিলাম- যেকোনো ইস্যুতে আমাদের ডাকেন কেন। আমরা তো ক্ষমতায় নেই। তিনি বলেছিলেন- আমরা মনে করি, আপনাদের ডাকা প্রয়োজন, তাই ডাকি। এ থেকে বোঝা যায়, জনগণ আমাদের চায়।’