নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, ‘শামীম ওসমান কীসের পক্ষে প্রচারণা করবেন জানি না, আমার জানার প্রয়োজনও নেই। আমার সমর্থক জনগণ। বিগত নির্বাচনগুলোর দিকে দেখলে দেখা যাবে যতকিছুই হোক না কেন এখানে উৎসবমুখর পরিবেশেই নির্বাচন হয়, এবারও তাই হবে। তবে আমি না, গণমাধ্যম সারাক্ষণ শামীম ওসমানকে নিয়ে ব্যস্ত। আমি ব্যস্ত আমার জনগনকে নিয়ে।’

সোমবার সকালে শহরের ২নং রেলগেটস্থ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

আইভী বলেন, ‘দলের সিদ্ধান্তের বাইরে শামীম ওসমান কেন গেছেন তা জানি না। তিনি সংবাদ সম্মেলনে কী বলবেন তাও জানি না। আমাকে তার সমর্থন দেওয়া বা না দেওয়ায় খুব বেশি ডিফারেন্স হয়ে যাচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে তিনি অনেক কিছু বলছেন, যা তার বলা উচিত না। আমাকে না শুধু, আমার বাবাকেও তিনি চেনেন। গতকাল প্রেস কনফারেন্সে তিনি যে অভিযোগ এনেছেন সেগুলো সম্পূর্ণ বেমানান। গত দেড় বছর যাবৎ শামীম ওসমান এই গ্রাউন্ড তৈরি করেছে আমার বিরুদ্ধে।’

তিনি বলেন, ‘স্থানীয় সরকারের কাজগুলো সবসময়ই চলমান থাকে। তবে আমি বলতে পারি নারায়ণগঞ্জবাসী আমাকে সবসময় তাদের কাছে পেয়েছে, যে কোনো কাজে। নগরবাসী আমাকে বেছে নেবে। কারণ যখন এ শহরের মানুষ একদমই কথা বলতে পারত না ভয়ে, ভীত থাকত, তখন জানি না অপর প্রার্থীরা কোথায় ছিলেন। আমি আমার বিগত ১৮ বছরে কোনো প্রার্থীকে এত সরব থাকতে দেখিনি। আমি ত্বকী হত্যাকাণ্ডের মতো এত আলোচিত হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে তৈমূর আলম খন্দকারকে একটা সমাবেশ করতে দেখিনি। এ শহরে আশিক, বুলু, চঞ্চলকে হত্যা করা হয়েছে। দেখিনি কখনও একটি প্রতিবাদ করতে।’

আইভী আরও বলেন, ‘আমার ভোটার ফিক্সড, নারায়ণগঞ্জের মানুষ সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে কাকে ভোট দেবে। আমার জয় বড় ব্যবধানেই হবে। এখানে কেউ আমার ভোটারকে খুব বেশি প্রভাবিত করতে পারবে, তা মনে হয় না। কারণ, নারায়ণগঞ্জের মানুষ খুব সচেতন। এই শহরের মানুষ প্রতিদিন যা দেখে, নিজের চোখে তাই বিশ্বাস করে। সুতরাং আমি মনে করি, আমার ভেটাররা তদের জায়গাতেই থাকবে এবং নারায়ণগঞ্জে উৎসবমুখর পরিবেশেই নির্বাচন হবে।’