ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ছোটন দাস (৩২) নামে এক রোহিঙ্গার পেট থেকে এক হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় আরও দুই যুবককে আটক করা হয়। সোমবার দুপুরে উপজেলার মালিগ্রাম বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাদের আটক করে ভাঙ্গা থানা পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- কক্সবাজার উখিয়া থানার বজেন্দ্র দাসের ছেলে ছোটন দাস (৩২), একই এলাকার আহমেদ শেখের ছেলে আমির হোসেন (২০) ও ভাঙ্গার আলগী ইউনিয়নের বরদিয়া গ্রামের মকবুল আহমদের ছেলে নুর মোহাম্মাদ (১৮)।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন যে চট্টগ্রাম থেকে ভাঙ্গায় ইয়াবার একটি বড় চালান আসছে। এমন সংবাদে পুলিশ ভাঙ্গা-মাওয়া-ঢাকা মহাসড়কে অভিযান চালায়। এ সময় মালিগ্রাম বাসস্ট্যান্ড থেকে যাত্রীবাহী একটি সিএনজিতে থাকা তিন যুবককে আটক করে তল্লাশি চালানো হয়। এদের মধ্যে ছোটন দাস নামের এক যুবক তার পেটের মধ্যে ইয়াবা আছে বলে স্বীকার করেন। পরে তাদের ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এক্স-রে করা হলে তার পেটে ইয়াবা আছে বলে নিশ্চিত করেন চিকিৎসক। পরে পায়ুপথ দিয়ে ২৬টি ক্যাপসুল আকৃতির পুটলা বের করা হয়। সেখানে এক হাজারের বেশি ইয়াবা পাওয়া যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক আজাদ বলেন, তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে ছোটন দাস নামের এক রোহিঙ্গার পেট থেকে ২৬টি কালো টেপের পুটলায় ১ হাজারের বেশি পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।