গণফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও প্রধান উপদেষ্টা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে এই মুহূর্তে জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন। আমি সবসময় ঐক্যের কথা বলেছি। এই ক্রান্তিলগ্নে আবারও বলছি, দেশ ও জাতিকে রক্ষা করতে ঐক্য করুন।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণফোরাম আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে 'মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার ভূলুণ্ঠিত' শীর্ষক আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। বিভক্ত গণফোরামের উভয় অংশের সঙ্গে ড. কামাল হোসেন সম্পর্ক বজায় রেখে চলছেন। এই অংশের কমিটিতে ড. কামাল হোসেনকে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও প্রধান উপদেষ্টা করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে তার পরিচয় সেভাবেই তুলে ধরা হয়। যদিও দলটির অপরাংশের কমিটিতে ড. কামাল হোসেন সভাপতি হিসেবে আছেন।

ড. কামাল হোসেন বলেন, সংবিধানে স্পষ্ট লেখা আছে দেশের মালিক জনগণ। তাই দেশ জনগণের হাতেই তুলে দিতে হবে। নির্বাচনে কালো টাকার খেলা বন্ধ করতে হবে।

তিনি বলেন, আজ ১০ জানুয়ারি, আমার জীবনের স্মরণীয় দিন। এই দিনে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বাংলাদেশে ফিরেছিলাম। বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলেন, তা আজ অনেক দূরে। তাই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা রক্ষা করতে আসুন আবার আমরা ঐক্যবদ্ধ হই। বৃহৎ জাতীয় ঐক্যের বিকল্প নেই। আপনারা উদ্যোগ নিন, আমি আপনাদের সঙ্গে আছি।

সভাপতির বক্তব্যে দলটির সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব- বঙ্গবন্ধুকে আপনারা দলীয় সম্পত্তি বানাবেন না। বঙ্গবন্ধুকে একটা পরিবারের নেতা বানাবেন না। দলীয় নেতা বানাবেন না। বঙ্গবন্ধু জনমতকে পুঁজি করে আওয়ামী লীগ চালিয়েছিলেন। আর আওয়ামী লীগ তাকেই পুঁজি করে চলছে।

দলটির নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ বলেন, আওয়ামী লীগ প্রতিনিয়ত বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বাণিজ্য করছে, অসম্মান করছে, তাকে দলীয়করণ করছে। দুঃখের সঙ্গে বলছি, মুজিব কোটকে এখন একটি পণ্যে পরিণত করা হয়েছে। মুজিব কোট আগে পরতাম, কিন্তু এখন পরি না।

গণফোরাম তথ্য ও গণমাধ্যম সম্পাদক মুহাম্মদ উল্লাহ মধুর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন দলটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, অ্যাডভোকেট মোহসীন রশিদ, অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন আবদুল কাদের প্রমুখ।