ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ভাঙ্গা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে পার্বতী দাশগুপ্ত বৃত্তি ২০২২ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ের হলরুমে উপজেলার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ বৃত্তি দেওয়া হয়। 

পার্বতী দাশগুপ্ত  ট্রাস্টের পক্ষ থেকে বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট এবং পার্বতী দাশগুপ্ত  ট্রাস্টের সদস্য অজয় দাশগুপ্তের মাধ্যমে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তির অর্থ তুলে দেন দৈনিক সমকাল পত্রিকার ভাঙ্গা সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি ও সরকারি কেএম কলেজের সহকারী অধ্যাপক এবিএম মিজানুর রহমান।  

বৃত্তিপ্রাপ্তরা হল, এসএসসির প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় প্রথম স্থানপ্রাপ্ত প্রভাতী শাখার বিজ্ঞান বিভাগের জান্নাতুল ফেরদৌস প্রমি, দিবা শাখার বিজ্ঞান বিভাগের অংশু সাহা, দশম শ্রেণির প্রভাতী শাখার বিজ্ঞান বিভাগের মেহেরীন ইসলাম মৌরি, দিবা শাখার বিজ্ঞান বিভাগের তাওহীদ জামান সিফাত, নবম শ্রেণির প্রভাতী শাখার রাইসা আনান আনিলা, দিবা শাখার মো. মেহরাব হোসেন, অষ্টম শ্রেণির প্রভাতী শাখার তাসনীম মাহাবুব অনুভা, দিবা শাখার তাহমিদ সাদ, সপ্তম শ্রেণির প্রভাতী শাখার আনুষকা জাহিদ ও দিবা শাখার এস.এম সালমান রহমান।

বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিম উদ্দিন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মুন্সি রুহুল আসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ আহমেদ জমসেদ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হায়দার হোসেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক ইকরাম আলী ফকির, সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহাবুদ্দিন শেখ, সহকারী শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান, সমকাল প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম শাকিল, মাই টিভির প্রতিনিধি মো. সরোয়ার হোসেন, দৈনিক অবজারভার প্রতিনিধি মাহমুদুর রহমান তুরান, বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীসহ বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

১৮৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে অন্যতম একজন সদস্য ছিলেন পার্বতী কুমার দাশগুপ্ত। ওই সময়ে তিনি ভাঙ্গা মুনসেফ কোর্টে চাকুরি করতেন। তার বাড়ি ছিল বরিশালের আগৈলঝাড়া থানার গইলা গ্রামে।