ঠিক যে সময় কনকনে ঠাণ্ডায কাতরাচ্ছিল উত্তরের জনপদ ঠাকুরগাঁওয়ে দরিদ্র শীতার্তরা, সেই সময় সমকাল সুহৃদ সমাবেশ ও আল খায়ের ফাউন্ডেশনের কম্বল পেয়ে মুখে হাসি ফুটল সেসব অসহায় মানুষের। 

মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউয়িনের পটুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ৩ শতাধিক অসহায় দরিদ্র ও শীতার্ত মানুষের হাতে একটি করে কম্বল তুলে দেন-উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মো. সামসুজ্জামান। 

এসময় প্রেসক্লাব সভাপতি মনসুর আলী, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারভীরুল ইসলাম, চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাহামুদ হাসান রাজু, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান হান্নু, সমকালের সহকারী সম্পাদক ও সুহৃদ সমাবেশের প্রধান সিরাজুল ইসলাম আবেদ, আল খায়ের ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর তারেক মাহমুদ সজীব, আল খায়ের ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা কমলজিৎ পাল, এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি ফিরোজ আমিন সরকার, চ্যালেন টোয়েন্টিফোরের জেলা প্রতিনিধি ফাতেমাতু ছোগড়া, সুহৃদ সমাবেশ জেলা শাখার উপদেষ্টা রেজাউল ইসলাম রন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা, অর্থ সম্পদক সারমিন আক্তার, সদস্য পারভেজ রানা, আল মামুন, আলমিন, আনছারুল ইসলাম ও জীবন হক উপস্থিত ছিলেন।

কম্বল হাতে পেয়ে সদর উপজেলার ফকদনপুর গ্রামের বাসিন্দা সন বর্মণ বলেন, অভাবের তাড়নায় দুই বেলা খেতে পাইনি। শীতের কাপড় কিনব কি করে? এই শীতে একটি কম্বল যে কত দরকার তা একমাত্র শীতে কষ্ট পাওয়া মানুষগুলোই ভালো জানে। শীতের রাতে খুব কষ্ট করে রাত পার করছিলাম। আজ কম্বল পেয়ে চিন্তা মুক্ত হলাম, নিশ্চিন্তে রাতে ঘুমাতে পারব। 

তার মতোই ষাটোর্ধ্ব রফিকুল ইসলাম বলেন, কনকনে শীতে ঝুপড়ি ঘরে থাকা যায় না, চারপাশ দিয়ে শীতের বাতাস ঢোকে। তাই কোনোরকম রাত পার করে  থাকি। কষ্টের যেন শেষ নেই। আমরা শীতের গরম কাপড় কিনতে পারি না। এই কম্বল পেয়ে খুব অনেক অনেক খুশি।