চট্টগ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক যুগ আগে মামাতো ভাইকে হত্যার অভিযোগে মামলা হয়েছিল তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে। সেই মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছিলেন তাদের প্রতিবেশী ও তার ছেলে। এবার সেই সাক্ষীর স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছে তারা।

মঙ্গলবার ভোরে মো. ইরান নামে এক ভাইকে জোরারগঞ্জ থানার ইছাখালী ভাবির মোড় এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত রোববার অন্য দুই ভাই মো. আরমান ও ইমতিয়াজকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। তিন ভাইয়ের বাড়ি নগরের ইপিজেড থানার ২ নম্বর মাইলের মাথা এলাকায়।

র‌্যাব জানায়, ২০০৯ সালের ১১ এপ্রিল জমি নিয়ে বিরোধের জেরে আসামিরা তাদের মামাতো ভাই এরশাদকে হত্যা করে। সেই মামলায় বিভিন্ন মেয়াদে কারাগারে থাকার পর জামিনে বেরিয়ে তারা সাক্ষীদের হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল।

মামলায় প্রতিবেশী কবির আহম্মেদ ও তার ছেলে ওমর ফারুক আদালতে সাক্ষ্য দিলে তাদের হত্যার হুমকি দেয় আসামিরা। এর জেরে ১ জানুয়ারি সকালে তিন ভাই দেশি অস্ত্র নিয়ে কবির আহম্মেদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তার স্ত্রী লায়লা বেগমকে গুরুতর আহত করে। তাকে বাঁচাতে গিয়ে কবির ও ফারুকও আহত হন। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬ জানুয়ারি লায়লার মৃত্যু হয়।

র‌্যাব-৭-এর কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান জানান, তিন ভাই দুর্ধর্ষ প্রকৃতির। তাদের মা-বাবা নেই। বিয়েও করেনি। এলাকায় নানা অপরাধ করে বেড়ায় তারা। মামাতো ভাই হত্যায় তাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়ায় কবিরের স্ত্রী লায়লাকে খুন করে তারা। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার ইরানকে ইপিজেড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইপিজেড থানার এসআই সুজন বড়ূয়া জানান, লায়লার মৃত্যুর পর কবিরের অভিযোগটি হত্যা মামলায় রূপান্তর করা হয়। আগে গ্রেপ্তার দুই ভাইয়ের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। অন্য আসামিকেও আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ড চাওয়া হবে।