কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে খেলনা বেলুন ফুলানোর সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ আবদুল্লাহ আল নাহিমের (১২) একটি চোখ রক্ষা করতে পারেননি চিকিৎসকরা। নষ্ট চোখ অপারেশনের মাধ্যমে অপসারণ করা হয়েছে। 

শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট থেকে মুঠোফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাহিমের মামা মোবারক হোসেন মাসুদ। নাহিম নাঙ্গলকোট উপজেলার বিরুলী গ্রামের বাসিন্দা আবদুল হালিমের ছেলে। সে স্থানীয় তুলাতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়তো। 

তিনি জানান, সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নাহিমের ডান চোখে দুটি ছোট স্প্লিন্টার টুকরো ঢুকে চোখটি নষ্ট করে দেয়। চিকিৎসকরা অনেক চেষ্টা করেও তা রক্ষা করতে না পেরে নষ্ট হওয়া চোখটি অপসারণ করে ফেলেন। 

জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম নাহিমের একটি চোখ অপসারণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বিস্ফোরণের সময় নাহিমের ডান চোখে সিলিন্ডারের ছোট ছোট স্প্লিন্টারের টুকরো ঢুকে গিয়ে নষ্ট হয়ে যায়। আমরা চেষ্টা করেছি, কিন্তু চোখটি রাখতে পারিনি। অপারেশন করে নাহিমের অকেজো চোখটি অপসারণ করেছি। নাহিম সুস্থ আছে। 

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে নাঙ্গলকোট উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের বিরুলিয়া গ্রামের বেলুন ব্যবসায়ী আনোয়ারের বাড়িতে বেলুনে গ্যাস ভর্তি করার সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে শিশুসহ ৪৫ জন আহত হন।  এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।