কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির পাঁচবারের সভাপতি মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন ৯০ বছর বয়সে বিয়ে করেছেন। কনের বয়স ৩৯ বছর। 

সোমবার দুপুরে ৫ লাখ টাকা কাবিনে এ বিয়ে হয়। কনে মিনুয়ারা আক্তারের বাড়ি কুমিল্লা নগরীর দেশওয়ালীপট্টি এলাকায়। বিয়ের অনুষ্ঠানে উভয় পরিবারের সদস্য ও বরের সহকর্মীরা ছিলেন। নববধূকে নিয়ে সন্ধ্যায় প্রাইভেটকারযোগে আদালতপাড়ার নিজ বাড়িতে পৌঁছান মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন। 

এদিকে এ বিয়ের খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। তাদের সুখী দাম্পত্য জীবন কামনা করে দোয়া ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা।

আইনজীবী মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন জানান, স্ত্রীর মৃত্যুর পর তিনি একা হয়ে পড়েন। ছেলে-মেয়েরা যে যার সংসার নিয়ে ব্যস্ত। এতে বৃদ্ধ বয়সে দেখভাল ও স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে ছেলে-মেয়েরা ভাবলেন, তাদের বাবার একজন সঙ্গী প্রয়োজন। তাদের ইচ্ছায় তিনি বিয়ে করেছেন। 

তিনি আরও জানান, ঘটকের মাধ্যমে কনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। উভয়ের সম্মতিতে বিয়ে হয়। এ বিয়েতে তিনি খুশি। সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। কনে মিনুয়ারা আক্তারও সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য অতিথিসহ সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। 

ইসমাইল হোসেনের বড় ছেলে আইনজীবী ইসহাক সিদ্দিকি বলেন, '৭ বছর আগে আমার মা মাহমুদা বেগম মারা যান। এতে বাবা একা হয়ে পড়েন। আমরা ভাবলাম, তাকে দেখভালের জন্য একজন সঙ্গীর প্রয়োজন। তাই ভাই-বোনরা মিলে তাকে বিয়ে করিয়েছি।' 

বিয়ে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে যাওয়া কুমিল্লা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট শরীফুল ইসলাম বলেন, '৫০ থেকে ৬০ জন বরযাত্রী গিয়ে বউ এনেছি। আমরা সবাই খুশি।'

অতিথি অ্যাডভোকেট খালেদা আক্তার মিনু বলেন, এ বিয়ের কাবিন হয়েছে ৫ লাখ টাকা। তার মধ্যে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা উসুল দেওয়া হয়েছে।