মেহেরপুরে ফেনসিডিল রাখার অভিযোগে আক্কাস আলী নামের এক ব্যক্তিকে ৭ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরের দিকে মেহেরপুরের স্পেশাল ট্রাইবুনাল-২ আদালতের বিচারক রিপতি কুমার বিশ্বাস এ রায় দেন। আক্কাস মেহেরপুরের গাংনীর অলিনগর উত্তর পাড়া গ্রামের সাবান আলীর ছেলে।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর মেহেরপুর ডিবি'র উপ-পরিদর্শক রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে মেহেরপুরের গাংনীর ওলিনগর সোনালী ব্রিকস এলাকা থেকে ফেনসিডিল বেচাকেনার সময় আক্কাস আলী ও কাজিপুর মধ্য পাড়া গ্রামের সোনা ডাকাতের ছেলে শিপনকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

ওই ঘটনায় স্পেশাল পাওয়ার অ্যাক্ট ১৯৭৪ সালের ২৫ বি (২) ধারায় মেহেরপুরের গাংনী থানায় আক্কাস আলী এবং শিপনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা প্রাথমিক তদন্ত শেষে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় মোট ১২ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। এতে আক্কাস আলী দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে ৭ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দেন।

মামলার অপর আসামি শিপনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাকে বেকসুর খালাস দেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে অতিরিক্ত পিপি কাজি শহীদ এবং আসামি আক্কাসের পক্ষে অ্যাডভোকেট এ কে এম শফিকুল আলম ও  শিপনের পক্ষে আতাউল হক আইনজীবী হিসেবে ছিলেন।