নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার প্রায় ৩০টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার জন্য কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে লক্ষ্মীপাশা আদর্শ বিদ্যালয়কে। তবে সেখানে টিকা দিতে প্রতিষ্ঠানপ্রতি পাঁচ হাজার টাকা নিচ্ছেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। দাবি করা টাকা না দেওয়ায় একটি কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থীকে টিকা না দিয়েই বের করে দেওয়ার অভিযোগও পাওয়া গেছে।

উপজেলার লক্ষ্মীপাশা আদর্শ মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শেখ ফারুক আহমেদ অভিযোগ করেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১৫ জানুয়ারি ওই কেন্দ্রে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা টিকা নিতে গেলে প্রতিষ্ঠানপ্রতি ৫ হাজার টাকা দাবি করেন লক্ষ্মীপাশা আদর্শ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ হাসানুজ্জামান ও সহকারী শিক্ষক শহিদুল ইসলাম। তার কলেজ প্রথম দিন টাকা না দেওয়ায় ফোন করে টাকা চান প্রধান শিক্ষক হাসানুজ্জামান। টাকা না দিলে বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে না বলেও জানান। গতকাল বৃহস্পতিবার কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থীকে নিয়ে দু'জন শিক্ষক ওই বিদ্যালয়ে করোনার টিকা নেওয়ার জন্য যান। তবে টাকা না দেওয়ায় টিকা ছাড়াই ওই শিক্ষার্থীদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে জানিয়েছি।

এ বিষয়ে লক্ষ্মীপাশা আদর্শ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসানুজ্জান জানান, টিকা কেন্দ্রের এসি খরচ ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নাশতা বাবদ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে কিছু টাকা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে মাত্র। তবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ ভূঁইয়া টিকার জন্য টাকা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শাহাবুর রহমান জানান, করোনার টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনো টাকা নেওয়া বা গ্রহণ করা হয় না।