‘আলহাজ্ব আব্দুল হাকিম মাইজভান্ডারী (রহঃ) ছিলেন একজন আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব। তিনি অসহায় মানুষের সেবা করেছেন অকাতরে। আবার স্রষ্টার সান্নিধ্যে যেতেও ধর্মীয় বিভিন্ন কাজ করেছেন নীরবে।’

আব্দুল হাকিম মাইজভান্ডারীর ২৬তম বার্ষিক পবিত্র ওরশ শরীফ উপলক্ষে আয়োজিত গুণীজন সংবর্ধনা, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। 

বুধবার নগরীর উত্তর কাট্টলী কলেজ রোড এইচ এম ভবন চত্বরে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সাতজন গুণীজনকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এতে ক্রেস্ট, নগদ অর্থ ও দামী কম্বল দেওয়া হয়।

ওরশ পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুন্ডের এমপি দিদারুল আলম। আর মেহমানে আলা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শাহজাদা-এ-গাউছুল আজম সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমদ আল হাসানী ওয়াল হোসাইন আল মাইজভান্ডারী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দিদারুল আলম এমপি বলেন, ‘মরহুম আব্দুল হাকিম মাইজভান্ডারী ছিলেন একজন আধ্যাত্মিক ও অলৌকিক জ্ঞানের অধিকারী মানুষ। আশেকে রাসুল, আশেকে আউলিয়া ও কামেল ব্যক্তি। ছিলেন দানবীর। তিনি তার জীবদ্দশায় মানুষের সেবা করতে পছন্দ করতেন। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রতি তার ভালোবাসা ছিল অতুলনীয়। তার এই সমাজ সেবা ধারাবাহিকভাবে চালু রেখেছেন ওনার সুযোগ্য সন্তান চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমসহ তার পরিবারবর্গ।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আকবর শাহ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান আহমদ, উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য শফিউল আলম, মোস্তফা-হাকিম গ্রুপ ও হোসনে আরা-মনজুর ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পরিচালক মো. নিজামুল আলম রাজু, মোহাম্মদ সারওয়ার আলম, ফারুক আজম, সাইফুল আলম, সাহিদুল আলম, মোস্তফা-হাকিম কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলমগীর, উপাধ্যক্ষ মাহফুজুল হক চৌধুরী, সাবেক উপাধ্যক্ষ বাদশা আলম, তাহের মনজুর কলেজের অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের সদস্য মো. আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।