গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ার নিজ ঘর থেকে এক যুবকের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দৌলতদিয়ার শাহাদত মেম্বারপাড়া থেকে জাকির হোসেন শেখ (৩২) নামে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে ট্রাক পারাপারে দালালির কাজ করায় জাকির গভীর রাতে অথবা ভোরে বাড়িতে ফিরতেন। বুধবার রাতে বাড়িতে তার স্ত্রী-সন্তানও ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালে তারা জাকিরের ঘরের দরজা খোলা পান। ভেতরে ঢুকে দেখেন, জাকিরের হাত বাঁকা হয়ে মেঝেতে পড়ে আছে। মুখ দিয়ে রক্ত পড়ছে। বিছানা এলোমেলো। এ ছাড়া পাশেই পড়ে ছিল একটি স্টু্ক্রডাইভার।

জাকিরের স্ত্রী মাহফুজা আক্তার জানান, জাকির প্রতিদিন গভীর রাতে বাড়ি ফিরত বলে রাতে ছেলেকে নিয়ে ঘরে একা থাকতে ভয় লাগত তার। এজন্য তিনি প্রতি রাতেই পাশেই বাবার বাড়ি থাকতেন। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে জাকির তাকে নিয়ে আসতেন। তবে বুধবার রাতে জাকির তাকে ডাকেননি।

জাকিরের ছোট ভাই আবু দাউদ ও মামা রবিউল ইসলাম জানান, সকালে চিৎকার শুনে জাকিরের ঘরে গিয়ে তার মরদেহ পান। ওই সময় তার মুখের ভেতর, কপালের ডান পাশ ও ডান হাতের ওপরের দিকে রক্ত ছিল। পরে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রসাশন ও অপরাধ) মো. সালাহউদ্দিন জানান, মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। পুলিশও প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছে।