বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বে দিনের প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইগার্সকে ১৪৪ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ব্যাটিং অর্ডারে ধসের পরেও শেষদিকে নাইম ইসলামের ক্যামিওতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ১৪৩ রানের পুঁজি দাঁড় করায়।

দুই দলের প্রথম দেখায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স প্রথমে ব্যাট করে ১৯০ রানের পুঁজি গড়েছিল। এরপর জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৬৫ রানে থেমেছিল খুলনা টাইগার্স। এবার দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে চট্টগ্রামকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

দলীয় ৩ রানের মাথায় ওপেনার কেনার লুইসকে হারায় (১) চট্টগ্রাম। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ৪৪ বলে ৫৭ রানের দুর্দান্ত এক জুটি গড়েন উইল জ্যাকস এবং আফিফ হোসেন। দুর্দান্ত এই জুটি ভাঙে উইল জ্যাকস ২৩ বলে ২৮ রান করে থিসারা পেরেরার বলে বোল্ড হয়ে ফিরলে।

দলীয় ৬০ রান ফেরেন উইল জ্যাকস। ব্যক্তিগত ২৮ রানে থিসারা পেরেরার বলে বোল্ড হন জ্যাকস। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে শুরু করে চট্টগ্রাম। ৯ম ওভারে ৪ বলে ৪ রান করে সাব্বির রহমান। এরপর মেহেদি হাসান মিরাজ ১০ বলে ৬ রান করে ফেরেন। বেনি হাওয়েলও টিকতে পারেননি বেশি সময়। ৪ বলে ৫ রান করে পেরেরার হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে তিনি যখন ফিরছেন তখন ৯২ রানে ৫ম উইকেটের পতন হলো চট্টগ্রামের।

উইকেটের অপরপ্রান্তে দুর্দান্ত ব্যাট করতে থাকা আফিফ হোসেন ফিরলেন অর্ধশতক থেকে ৬ রান দূরে থাকতে। ৩৭ বলে ৪৪ রান করে আফিফ ফিরলেন দলীয় ৯৭ রানে। দলীয় রান একশ পেরুতেই শামিম হোসেন পাটওয়ারি ৪ বলে ২ রান করে পেরেরার তৃতীয় শিকার হয়ে ফিরলেন।

শেষ দিকে নাইম ইসলাম একাই লড়ে যান। তার ক্যামিও ইনিংস থেকে আসে ১৯ বলে ২৫ রান। এছাড়া শরিফুল ইসলাম ৬ বলে ১২ রান করেন। এতেই নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৩ রান তুলতে পারে চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রামের হয়ে বল হাতে সবচেয়ে সফল পেরেরা। ৪ ওভার বল করে মাত্র ১৮ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট নেন এই লঙ্কান তারকা। সেকুগে প্রসন্ন, ফরহাদ রেজা, কামরুল ইসলাম রাব্বি, নাবিল সামাদ ও মাহেদি হাসানের শিকার একটি করে উইকেট।

খুলনা টাইগার্স

মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক, উইকেটরক্ষক), সেকুগে প্রসন্না, সৌম্য সরকার, রনি তালুকদার, ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বি, থিসারা পেরেরা, শেখ মেহেদি হাসান, ফরহাদ রেজা, নাবিল সামাদ ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স

মেহেদি হাসান মিরাজ (অধিনায়ক), নাসুম আহমেদ, কেনার লুইস, উইল জ্যাকস, সাব্বির রহমান, আফিফ হোসেন, বেনি হাওয়েল, শামীম পাটোয়ারী, নাইম ইসলাম, শরিফুল ইসলাম ও রেজাউর রহমান রাজা।