নাটোরে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার পর পালানোর অভিযোগ উঠেছে রাজু প্রামানিক নামের এক ব্যক্তি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। শনিবার সকালে সদর উপজেলার হালসা ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নিহতের নাম মিনা খাতুন (মিম) । অভিযুক্ত রাজু প্রামানিক নাটোর শহরের বড়গাছা বুড়াদরগা এলাকার সুজন প্রামানিকের ছেলে।

নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারেক জুবায়ের ও নিহতের স্বজনরা জানায়, বিয়ের পর থেকেই মিম ও তার স্বামীর মধ্যে পারিবারিক বিরোধ চলছিল। রাজু মাঝে মধ্যেই তার স্ত্রীকে মারধর করতেন। এ নিয়ে নাটোর সদর থানায় রাজুর বিরুদ্ধে জিডিও করা হয়। অত্যাচারের কারণে প্রায় এক বছর আগে মিমকে নিয়ে বাড়িতে চলে যান তার মা চামেলী বেগম। মিমকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য রাজু মাঝে মাঝেই শ্বশুরবাড়িতে যেতেন। মিম তার সাথে ফিরে আসতে না চাইলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দিতেন রাজু ।

নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারেক জুবায়ের জানান, সকালে রাজু ও তার সহযোগীরা একটি মোটর সাইকেল যোগে সদর উপজেলার হালসা ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে যায়। সেখানে তারা মিমকে এলাপাথারি ছুরিকাঘাত করে। এ সময় মিমের ছোট বোন বাধা দিতে গেলে তাকেও ছুরি দিয়ে আঘাত করে মোটর সাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায় তারা। পরে আহত অবস্থায় মিমকে নাটোর সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। রাজু ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ।