দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে রিসান (১৫) নামের এক কিশোরের পায়ের রগ ও গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে উপজেলার রানীগঞ্জ বাজারের গোহাটির পেছনে একটি হোটেলের ভেতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত রিসান উপজেলার কশিগাড়ী গ্রামের লিটন মণ্ডলের ছেলে। সে রানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করত। শুক্রবার রাত থেকে রিসান নিখোঁজ ছিল বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সপ্তাহের সোমবার ও বৃহস্পতিবার রানীগঞ্জ বাজারে গরু-ছাগলের হাট বসে। সেখানে এক হোটেলে শুধুমাত্র হাটের দিন রিসান হোটেল শ্রমিকের কাজ করতো। শনিবার দুপুরে বন্ধ থাকা সেই হোটেলের ভেতর রক্তাক্ত অবস্থায় তার মরদেহ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ এসে মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

রিসানের মা ওমিসা বেগম জানান, লেখাপড়ার পাশাপাশি রিসান সংসারে সহযোগিতা করার জন্য রানীগঞ্জ গোহাটির একটি হোটেলে কাজ করত। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ছেলেকে ফোন দিয়ে বাসায় আসতে বললে কিছুক্ষণ পরে আসবে বলে জানায়। পরে তিনি ঘুমিয়ে পড়লেও ছেলে আর বাড়িতে ফেরেনি। পরে লোকের কাছে জেনে ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলেকে শনাক্ত করেন মা।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির বলেন, কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের ডান পায়ের রগ ও গলা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কাটা ছিল। ঘটনার রহস্য ও জড়িতদের আটক করতে ইতোমধ্যেই তদন্ত কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এই ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।