নরসিংদীতে আছিয়া আক্তার (২৮) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। বুধবার সকালে মাধবদী থানার মহিষাশুরা এলাকার একটি ইটভাটা থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত আছিয়া আক্তার একই এলাকার ফজর আলীর স্ত্রী ও উপজেলার বালুসাইর গ্রামের শওকর আলীর মেয়ে।

নিহত ওই গৃহবধূর এক কন্যা এবং দুই ছেলে সন্তান রয়েছে। ঘটনার পর থেকেই নিহতের স্বামী ফজর আলী পলাতক রয়েছেন।

এলাকাবাসী জানায়, মাদকাসক্ত ফজর আলী ফজুর সাথে দীর্ঘদিন ধরেই পারিবারিক কলহ চলছিল তার স্ত্রী আছিয়ার। মাদক এবং জুয়ার টাকার জন্য প্রতিনিয়তই স্ত্রীকে মারধর করতেন ফজর আলী। এরই জের ধরে মঙ্গলবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়।  এক পর্যায়ে ফজর আলী বাড়ির পার্শবর্তী একটি ইটভাটায় নিয়ে আছিয়াকে রড এবং ইট দিয়ে মাথা থেঁতলে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান বলেন, অভিযুক্ত ফজর আলী মাদকাসক্ত হওয়ায় স্ত্রীর সঙ্গে তার পারিবারিক কলহ ছিল। মাদকের টাকার জন্য প্রায়ই স্ত্রীকে মারধর করতো বলেও জানতে পেরেছি। এরই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাতে ঝগড়ার এক পর্যায়ে ফজর আলী তার স্ত্রীর মাথা ইট এবং লোহার রড দিয়ে থেঁতলিয়ে হত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততার প্রাথমিক প্রমাণও মিলেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।