শয়ন কক্ষের দরজা বন্ধ করে রাতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মারজানা আক্তার চৌধুরী লিজা (২৮)। স্বজনরা টের পেয়ে তাৎক্ষণিক দরজা ভেঙে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা ব্যর্থ করে না ফেরার দেশেই চলে যান লিজা।

বুধবার রাত ১০টার দিকে সিলেট নগরীর ইলেকট্রিক সাপ্লাই কলবাখানী এলাকায়  কলবাখানি-৫৪ নম্বর বাসার ৪র্থ তলায় এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া মারজানা আক্তার চৌধুরী লিজা (২৮) সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার মাইজগ্রামের মৃত বজলুল হক চৌধুরীর মেয়ে। তিনি পরিবারের সাথে ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন।

সিলেট মেট্রোপলিট পুলিশের (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের জানান, বুধবার রাতে লিজা শয়নকক্ষের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে শয়নকক্ষের দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এয়ারপোর্ট থানার ওসি খান মোহাম্মদ মাইনুদ্দিন জানিয়েছেন, লিজা অবিবাহিত ছিলেন। কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন সে বিষয়টি পরিষ্কার নয়। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।