আগামী বাজেটে বিড়ির ওপর শুল্ক কমানো, অর্পিত ১০ শতাংশ অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহারসহ পাঁচ দফা দাবিতে কুমিল্লার লালমাই এলাকায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের বাড়ির সামনের সড়কে মানববন্ধন, অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

সরেজমিন পরিদর্শন ছাড়া বিড়ি কারখানার লাইসেন্স না দেওয়া, নকল বিড়ি বন্ধে পদক্ষেপ নেওয়া এবং বিড়ি শিল্পে নিয়োজিত শ্রমিক ও মালিকদের সুরক্ষা আইন প্রণয়নেরও দাবি জানান তারা।

অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি এমকে বাঙ্গালী। বক্তব্য দেন সংগঠনের সহসভাপতি নাজিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, কার্যকরী সদস্য আনোয়ার হোসেনসহ শ্রমিক নেতারা। পরে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সারোয়ারের মাধ্যমে অর্থমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেন তারা।

কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, দেশের প্রান্তিক শ্রমিকদের বড় একটি অংশ বিড়ি কারখানায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। স্বাধীনতার পর দেশের সাধারণ মানুষ ও অসহায় শ্রমিকদের কথা বিবেচনা করে বঙ্গবন্ধু বিড়ি শিল্পকে শুল্কমুক্ত ঘোষণা করেন। শ্রমবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৯-২০১০ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় বিড়িতে শুল্ক কমিয়ে সিগারেটে বাড়ানোর নির্দেশনা দেন। কিন্তু বৈষম্যমূলকভাবে বিড়ির ওপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা। ফলে মালিকরা বিড়ি কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছেন। কারখানা বন্ধ হওয়ায় বেকার হয়ে পড়ছেন বিড়ি শ্রমিকরা। অন্য কাজ না পেয়ে অনাহারে, অর্ধাহারে দিন পার করছেন। তাই তারা এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।