কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী হল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের পার্শ্ববর্তী সড়কের সংস্কারকাজ শুরু হয় গত বছরের আগস্টে। সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় খোঁড়াখুঁড়ির মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে এ কার্যক্রম। বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকায় পিকনিক স্পট থাকায় এ রাস্তা দিয়ে সবসময়ই চলাচল করে ভারী পরিবহন। ফলে রাস্তার ধুলাবালির কারণে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ছেন কুবির আবাসিক হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা। আশপাশের মেস এবং আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরা এ রাস্তা দিয়েই ক্যাম্পাসে যাতায়াত করেন। এ ছাড়া রাস্তার আশপাশে রয়েছে খাবারের হোটেল ও মুদি দোকান।

ধুলাবালির কারণে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন কুবি শিক্ষার্থীরা। এ অবস্থায় সংস্কারকাজ দ্রুত শেষ করার দাবিতে গতকাল বুধবার ওই সড়ক অবরোধ করেন তারা। এ সময় তারা রাস্তা সংস্কার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। শিক্ষার্থীদের অবরোধে সালমানপুর এলাকাবাসীও সমর্থন জানিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসি বিভাগের দশম ব্যাচের শিক্ষার্থী ইমাম হোসেন মাসুম বলেন, মেরামত করার নামে পুরো রাস্তা খুঁড়ে বেহাল অবস্থা করেছে কর্তৃপক্ষ; যার ফলে ধুলাবালিতে ডুবে থাকে এই রাস্তা। শিক্ষার্থীদের এই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে সমস্যা হচ্ছে। আমরা চাই, এর সমাধান হোক।

স্থানীয় এলাকাবাসী তোতা মিয়া বলেন, রাস্তায় ধুলাবালির কারণে আমাদের চলাফেরা করতে কষ্ট হয়। অন্য জায়গা থেকে মানুষ আসে, তাদের কাছে আমাদের গ্রামের সুনাম নষ্ট হয়। যত দ্রুত সম্ভব ঠিকাদাররা যেন রাস্তার কাজ শেষ করে আমাদের ভোগান্তি থেকে মুক্তি দেয়।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মো. কামাল উদ্দীন বলেন, এই রাস্তা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ নয়। তাই চাইলেও আমরা সহজে কিছু করতে পারব না। আমরা উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলে সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে এ সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করব।

কোটবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলব, যেন তিনিও ব্যবস্থা নেন।