লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে মাকে কুপিয়ে হত্যার পর মৃহদেহে আগুন দেওয়ার অভিযোগে মিলন (২৬)  নামের এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।  
বৃহস্পতিবার রাতের কোন এক সময় উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের আশারকোটা গ্রামের ওহাদ আলী ব্যাপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। সকালে পুড়ে যাওয়া মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নিহতের নাম আমেনা বেগম (৬০)। তিনি ওই বাড়ির মৃত আলী আকবরের স্ত্রী। তার তিন ছেলে রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়,অভিযুক্ত মিলন মানসিকভাবে অসুস্থ। বাড়িতে তিনি এবং তার মা থাকতেন। বুধবার সন্ধ্যায় মিলনের মা আমেনা বেগম তার বাপের বাড়ি থেকে ফেরেন। রাতে মা-ছেলে ঘরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর রাতের কোন এক সময় মিলন তার মাকে হত্যা করে মৃতদেহে কম্বল পেঁচিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। ফজরের নামাজের সময় বাড়ির অন্য সদস্যরা ঘুম থেকে উঠলে ওই ঘর থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখেন এবং পোড়া গন্ধ পান। এ সময় তারা ঘরে ঢুকে বৃদ্ধ আমেনার পা ও শরীরের কিছু হাড় ছাড়া বাকি অংশ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে দেখতে পান।পাশেই ছেলে মিলন বসা ছিল। পরে তারা থানায় খবর দিলে পুলিশ পুড়ে যাওয়া মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

রামগঞ্জ থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মিলনকে আটক করা হয়েছে। মামলাটি প্রক্রিয়াধীন আছে।