মাদারীপুরের কালকিনিতে এক কিশোরের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়নের মহরদ্দিরচর গ্রামে নিজ ঘর থেকে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের নাম জহিরুল ইসলাম সরদার। সে একই এলাকার কাতার প্রবাসী বারেক সরদারের ছেলে। নিহত জহিরুল সমিতিরহাট মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

পুলিশ জানায়, জহিরুল ইসলাম সরদার তাদের তিন রুমের ভবনের এক রুমে থাকতো। বুধবার রাতে সে খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে যায়। সকালে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে মা কহিনুর বেগম তাকে ডাকাডাকি করেন। এক পর্যায়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে জহিরুলের কম্বল দিয়ে ঢাকা মৃতদেহ দেখতে পান। পরে তার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

কালকিনি থানার ওসি ইসতিয়াক আসফাক রাসেল বলেন, জহিরুলের গলায় কোপের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় কুপিয়ে তাকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

এ ব্যাপারে নিহতের মা কহিনুর বেগম বলেন, আমার স্বামী কাতার প্রবাসী। আমাদের তেমন কোন শত্রু নেই। আমাদের ঘরের তিন রুমের মধ্যে উত্তর কোণার রুমে জহিরুল ঘুমাতো। কেন কি কারণে তাকে কেউ হত্যা করেছে, এখনও বুঝতে পারছি না। তবে যারাই হত্যা করুক, আমি হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।

মাদারীপরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) চাইলাউ মারমা বলেন, মৃতদেহের সুরতহাল করা হয়েছে। নিহতের পরিবার মামলা দিলে আমলে নেয়া হবে। অপরাধী যেই হোক না কেন তাকে খুঁজে আইনের আওতায় আনা হবে।