কক্সবাজারের চকরিয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে এবার মারা গেছে সিংহরাজ 'সোহেল'। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর বয়সজনিত কারণে বুধবার বিকেলে সিংহটির মৃত্যু হয়। পরে যথাযথ নিয়ম মেনে ময়নাতদন্ত শেষে সিংহটির মৃতদেহ গতকাল বৃহস্পতিবার পুঁতে ফেলা হয়েছে পার্ক এলাকায়। এর আগে সিংহের মৃত্যুর ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় চকরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

চকরিয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও ভেটেরিনারি সার্জন সুপন নন্দী বলেন, অসুস্থতা ও বার্ধক্যজনিত কারণে তিন বছর ধরে সিংহটি অনেকটা চলাচলে অক্ষম ছিল। খাবারও ঠিকমতো খেতে পারত না। সিংহটির ওপরের সারির কোনো দাঁতই ছিল না।

পার্কের তত্ত্বাবধায়ক (রেঞ্জ কর্মকর্তা) মো. মাজহারুল ইসলাম বলেন, ২০০৪ সালে ঢাকার মিরপুরের জাতীয় চিড়িয়াখানা থেকে চার বছর বয়সী সিংহটিকে এই সাফারি পার্কে আনা হয়েছিল। সিংহটির বয়স হয়েছিল ২২ বছর। সাধারণত সিংহ ১৫-১৮ বছর বাঁচে। সাফারি পার্কে সিংহটির জুটি 'নদী', শাবক 'সম্রাট' ও 'টুম্পা' রয়েছে। ২০১৯ সালে সিংহটি অসুস্থ হয়ে পড়লে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের চার শিক্ষক আলাদাভাবে চিকিৎসা করেন। তারা পর্যবেক্ষণে সিংহটির বার্ধক্য ও আয়ুস্কাল শেষের দিকে বলে উল্লেখ করেছিলেন।

সাফারি পার্কের প্রকল্প পরিচালক এবং বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ চট্টগ্রামের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) রফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, গত জানুয়ারিতে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে অ্যানথ্রাক্স ভাইরাসে প্রাণীর মৃত্যুর ঘটনায় ডুলাহাজারা সাফারি পার্কে আগে থেকে বিশেষ সতর্কতা নেওয়া হয়।