চট্টগ্রাম রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সদর দপ্তরে (সিআরবি) কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে শিশুসহ জোড়া খুনের মামলায় ৬৪ আসামির বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার চট্টগ্রাম তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ জসীম উদ্দিনের আদালতে অভিযোগ গঠন করে এ আদেশ দেন। ঘটনার ৮ বছর পর অবশেষে চাঞ্চল্যকর এ মামলার বিচার শুরু হলো।

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট ফখরুদ্দিন চৌধুরী বলেন, সিআরবি জোড়া খুনের মামলায় ৬৪ আসামির বিরুদ্ধে বিচার শুরু হয়েছে। আগামী ২৫ মে মামলার প্রথম সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেছেন আদালত।

২০১৩ সালের ২৪ জুন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থ বিষয়ক সহসম্পাদক হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর এবং ছাত্রলীগের তৎকালীন কেন্দ্রীয় নেতা বর্তমানে নগর যুবলীগের সদস্য সাইফুল আলম ওরফে লিমন গ্রুপের মধ্যে সিআরবি এলাকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিতে খুন হন যুবলীগের কর্মী সাজু পালিত ও শিশু মো. আরমান।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ৮৭ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা করে। পরে নিহত সাজু পালিতের পরিবারের পক্ষ থেকে আদালতে একটি সিআর মামলা করেন। তদন্ত শেষে প্রথমে নগর গোয়েন্দা পুলিশ এ মামলায় ২০১৫ সালে বাবরসহ ৬২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

চার্জশিট ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় আদালত পিবিআইকে অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেন। ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারিতে পিবিআই বাবর, লিমন, অজিতসহ ৬৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। কিন্তু ঘটনায় ব্যবহৃত কোনো অস্ত্র উদ্ধার করতে পারেনি ডিবি কিংবা পিবিআই।

বিচার শুরু হওয়া আসামিরা হলেন- যুবলীগ নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর ও তার অনুসারী যুবলীগ নেতা রিটু দাশ, প্রেমাশীষ মুৎসুদ্দী, অজিত বোস, মোহন তাঁতী, খোকন চন্দ্র তাঁতী, অজিত দাশ, চান মিয়া, রাজু, রাকেশ, সুমন, টিটু দাশ, লাবলু ঘোষ, টিপু, আসলাম, ছোটন বড়ূয়া, সুমন চৌধুরী, শিবু দাশ চৌধুরী, শিমুল প্রসাদ পিন্টু, ফারুক, জসিম, মনির মিয়া, আনু মিয়া, ইউসুফ, জাহিদ, জহির, ফরিদ ও মনির।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল আলম লিমন ও তার অুনসারী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি আলমগীর টিপু, ছাত্রলীগ নেতা অমিত চক্রবর্তী শশি, মোহাম্মদ টিপু, ওসমান গণি দুলু, মনোয়ারুল আলম চৌধুরী, জাহেদ, আমিন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, শরীফ আহমেদ, আমির হোসেন আমু, রায়হান আহমদ, কামরুল হাসান, নজরুল ইসলাম, রানা আহমেদ, মনিরুজ্জামান দিনার, হাসমত আলী রাসেল, সুজয়মান বড়ুয়া, জমির উদ্দিন, আবু জাফর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, রাজু মুন্সী, ফয়সাল আহমেদ, মিজানুর রহমান, জাফর, পিয়াল আইচ, তারেকুর রহমান, ইলিয়াছ, জাবেদ হোসেন, রুবেল চন্দ্র দাশ, নাজমুল হাসান, আশরাফুল হোসেন, মিলন, আশরাফুল আলম, রবিউল ইসলাম জিলানী, কিয়াস কুমার দাশ ও বিশ্বজিত দাশ।

প্রসঙ্গত, বাবর নগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী। লিমন সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।