বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন তিনি বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির জন্য আওয়ামী লীগের সিন্ডিকেট দায়ী। আওয়ামী লীগ সিন্ডিকেট ইচ্ছে করে জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়েছে। দেশের মানুষ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে দুর্ভোগে পড়েছে। তবে এ ব্যাপারে সরকারের কোনো ভাবাবেগ নেই। কারণ এই ভোট চুরির সরকারের জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতা নেই।

সোমবার বিকেলে নগরীর সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সিলেট মহানগর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মোশাররফ হোসেন এসব কথা বলেন।

ড. মোশাররফ বলেন, এ সরকার ভোট পাওয়া জন্য বলেছিল, ১০ টাকা কেজিতে দেশের মানুষকে চাল খাওয়াবে। কিন্তু দিন দিন এ সরকার চাল-ডাল-তেলসহ সব নিত্যপণ্যের দাম বাড়াচ্ছে। জ্বালানি তেল, বিদ্যুৎ,গ্যাস- কোনো কিছুই বাদ যায়নি মূল্য বৃদ্ধি থেকে। সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ব্যাংক, ডাকাতির কারণে দেশের অর্থনীতির অবস্থাও নাজুক। যার খেসারত দিতে হচ্ছে জনগণকে।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকির সভাপতিত্ব ও সদস্য সচিব মিফতাহ সিদ্দীকির পরিচালনায় সমাবেশে বক্তৃতা করেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার প্রমুখ।

বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিতে দুপুরের পর থেকে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে শহীদ মিনারে জড়ো হন। সমাবেশ শুরুর আগে অনেকে জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে ওঠে পড়েন। এ সময় স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের বুঝিয়ে নিচে নামানোর চেষ্টা করলেও সমাবেশ চলাকালে অনেকে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে অবস্থান করছিলেন।

এদিকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে আগামীকাল মঙ্গলবার নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করবে বিএনপি। এছাড়া বুধবার নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে বিক্ষোভ সমাবেশ করবে জেলা বিএনপি।