ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে দুই ভাগ্নিকে গলাকেটে হত্যার অভিযোগে মামাকে রিমান্ড চায় পুলিশ। 

থানায় মামলা শেষে মঙ্গলবার বিকেলে অভিযুক্ত মামাকে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। তবে গতকাল সোমবার রিমান্ড শুনানি হয়নি।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. আবদুল কাদের মিয়া বলেন, কেন হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু বলে না মাহবুব। তাকে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। রিমান্ড পেলে হত্যার কারণ উদঘাটন করার চেষ্টা করা হবে।


ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের কাজীরবলসা গ্রামে দুই ভাগ্নিকে দা দিয়ে গলাকেটে হত্যা করে মামা মাহবুব মিয়া। পরে একটি মসজিদের ভেতর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মামাকে। পরিবার দাবি করেছে- মাহবুব বছরখানেক সময় ধরে মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত ছিলেন।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত শিশু তৃপ্তি মনির বাবা জাহাঙ্গীর আলম শিবলু বাদী হয়ে সোমবার রাতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ওই মামলায় মাহবুবকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে ময়মনসিংহ আদালতে সোপর্দ করে। 

আদালত বুধবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে অভিযুক্তকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। অপরদিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে দুই শিশুর ময়নাতদন্ত শেষে বিকেলে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।