বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, বৈশ্বিক ব্যবস্থাপনায় জ্বালানি জনসচেতনতা বাড়াতে সাংবাদিকদের অবদান অপরিসীম। বিদ্যুৎ ও জ্বালানির সরবরাহ, সঞ্চালন, বিতরণ ও ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে জ্বালানি বিটের সাংবাদিকদের আরও কাজ করার সুযোগ রয়েছে। সংবাদের পেছনের সংবাদ বিবেচনা করে দেশ ও জাতির মঙ্গলে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করা উচিত।

সোমবার সচিবালয়ে জ্বালানি খাতের সাংবাদিকদের সংগঠন ‘ফোরাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স, বাংলাদেশ (এফইআরবি)’-এর নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সাশ্রয়ী মূল্যে জ্বালানি সরবরাহে সরকার কাজ করছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানির চাহিদা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় সরবরাহ নেটওয়ার্কের আকারও ক্রমশ বড় হচ্ছে, চ্যালেঞ্জও বাড়ছে। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সাংবাদিকদের প্রতিনিয়ত পাশে পেতে চাই।

আলোচনাকালে ‘এফইআরবি’-এর চেয়ারম্যান শামীম জাহাঙ্গীর, ভাইস চেয়ারম্যান সেরাজুল ইসলাম সিরাজ, নির্বাহী পরিচালক রিসান নাসরুল্লাহ, পরিচালক (উন্নয়ন ও অর্থ) লুৎফর রহমান কাকন, পরিচালক (বিনোদন ও কল্যাণ) মজিব মাসুদ, পরিচালক (ডাটা ব্যাংক) মাহবুব রনি, পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও গবেষণা) হাসনাইন ইমতিয়াজ, সদস্য অরুণ কর্মকার, সদস্য আশরাফুল ইসলাম, সদস্য মো. আজিজুর রহমান ও সদস্য শাহেদ সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।

আরও মসৃনভাবে কাজ করার স্বার্থে নিজস্ব কার্যালয়, এনার্জি রিসার্চ ইনস্টিটিউট, প্রশিক্ষণ- (অ্যাওয়ার্ড প্রদান ও দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ফেলোশিপ প্রদান), দুর্যোগকালীন ফান্ড, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের সঙ্গে নিয়মিত মতবিনিময় ও বড় বড় প্রকল্প পরিদর্শনের বিষয় প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর করা হয়। 

প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের চলমান ও আগত প্রকল্পগুলোর তুলনামূলক চিত্র আলোচনা করে বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের সম্ভাবনা অনুসন্ধানে সাংবাদিকদের আরও অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। আলোচনাকালে তিনি ‘এফইআরবি’ এর সঙ্গে আরও নিবিঢ়ভাবে কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।