সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে মো.রেজাউল করিম (৫০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত ৯ টার দিকে উপজেলার নিমগাছী বিলেরপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই নারীর নাম নার্গিস খাতুন (৪০)। তিনি সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার উপজেলা ছোনগাছা গ্রামের আব্দুর রশিদের মেয়ে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে স্বামীর লাঠির আঘাতে নার্গিস খাতুন গুরুতর আহত হন। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয় ক্লিনিকে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে প্রথমে নার্গিসকে সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করার সময় হাসপাতাল চত্ত্বরেই তার মৃত্যু হয়। পরে স্বজনরা তার লাশ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে দাফনের চেষ্টা করলে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ৯৯৯ নম্বরে কল করে বিষয়টি রায়গঞ্জ থানা পুলিশকে জানানো হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশটি উদ্ধার করে। শনিবার লাশটি ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে সোনাখাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল রিপনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে  বলেন, স্বামীর লাঠির আঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।

রায়গঞ্জ থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বলেন,নিহতের মাথায় লাঠির আঘাতের দাগ রয়েছে।  এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ওই নারীর স্বামীকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে রায়গঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।