নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, আপনারা একটু সাহসী হোন, নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস রাখুন। দেখবেন কোনো বাধাই বাধা না। আপনার অভিধান থেকে ‘না’ শব্দটা উঠিয়ে দিন। সেটা যত কঠিন কাজই হোক না কেন, আমরা যেন সেই কাজটা করতে পারি।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আলী আহাম্মদ চুনকা মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ইউনিলিভার আয়োজিত ‘টেকসহ উন্নয়নে নারী’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নাসিক মেয়র এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সমঝোতার মাধ্যমে কাজ করা অনেক বেশি সহজ। মানুষের চাওয়াকে প্রাধান্য দিতে হবে, আর সেই চাওয়া যদি যৌক্তিক হয় তাহলে সেটি মেনে নিতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইউনিলিভার বাংলাদেশের হিউম্যান রিসোর্স ডিরেক্টর সাকসি হান্ডা, ইউএনডিপির বাংলাদেশের প্রকল্প পরিচালক ইউগেস প্রাদানাম, ইউনিলিভারের হেড অব কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স শামীমা আক্তার, নাসিকের সংরক্ষিত ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাওন অংকন এবং টাউন ফেডারেশনের নেত্রী সালমা সুলতানা।

অনুষ্ঠানে মেয়র আইভীকে ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এছাড়া দলিত সম্প্রদায়ের ৫ নারীকে উপহারসামগ্রী দেওয়া হয়।

আইভী তার বক্তব্যে আরও বলেন, নারী জাগরণ, নারীর ক্ষমতায়, নারীর উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনন্য ভূমিকা রেখেছেন। দেশের সেনাবাহিনী থেকে শুরু করে এমন কোনো সেক্টর নেই যেখানে তিনি নারীদের কাজ করার সুযোগ করে দেন নাই।

আইভী বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর ’৯৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্থানীয় সরকারের যে আইন করেছিলেন, সেখানে তিনি নারীদের জন্য সংরক্ষিত ওয়ার্ড করেছিলেন। পরবর্তীতে সংসদে সংরক্ষিত নারী আসন করে দিয়েছিলেন। সংরক্ষিত ওয়ার্ড ও আসনের মধ্যদিয়ে প্রধানমন্ত্রী নারীদের কাজ করার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, অনেকেই আমাকে হিরো বলেন। আমি বলব, হিরো যদি বলতে হয় তাহলে আমাকে নয়, নারায়ণগঞ্জের মানুষকে বলুন। কারণ নারায়ণগঞ্জের মানুষ যে কত বেশি সাহসী, শুধু তাদের জাগিয়ে উঠানোর দরকার ছিল। এই নারায়ণগঞ্জের মানুষই আমাকে কাজ করার সুযোগ তৈররি করে দিয়েছেন।

এদিকে সভার আগে ইউনিলিভারের নারী কর্মীরা নগরের শেখ রাসেল পার্কে পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা করে প্রায় ৫ কেজি পলিথিন সংগ্রহ করেন।