কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে তাহমিনা আক্তার পিনু (২৯) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগ, তাদের মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। অন্যদিকে গৃহবধূর শ্বশুর পক্ষের লোকজনের দাবি, পিনু আত্মহত্যা করেছে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের কালকোট গ্রামের মজুমদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ মারা যাওয়া পিনুর স্বামী ইফতেখারুল আলম মজুমদার রাসেলকে (৩৫) আটক করেছে। মারা যাওয়া গৃহবধূর বাবা মেয়েকে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মারা যাওয়া তাহমিনা আক্তার পিনু উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের নোয়াপুর গ্রামের মো. ইউনুসের মেয়ে ও একই উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের কালকোট গ্রামের ওয়ালী উল্লাহর ছেলে ইফতেখারুল মজুমদার রাসেলের (৩৫) স্ত্রী।

তাহমিনা আক্তার পিনুর বাবা মো. ইউনুস জানান, তিন বছর আগে তাহমিনা আক্তার পিনুর সঙ্গে অভিযুক্ত রাসেলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে প্রায় সময় রাসেল যৌতুকের জন্য পিনুকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন সময়ে রাসেলকে ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিয়েছেন। আরও টাকার জন্য রাসেল ও তার পরিবারের লোকজন পিনুকে নির্যাতন করতে থাকে।  

পিনুর বাবা আরও জানান, শুক্রবার রাতে রাসেল মোবাইলে ফোন করে তার বাড়িতে সমস্যা হয়েছে জানিয়ে তাকে দ্রুত যেতে বলে লাইন কেটে দেয়। পরে তিনি পিনুর শয়নকক্ষে গিয়ে মেয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। মৃত্যুর কারণ জানতে চাইলে পিনু আত্মহত্যা করেছে বলে রাসেল তাকে জানায়।

পিনুর বাবা বলেন, আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে প্রচার করা হচ্ছে। পরে আমি পুলিশকে খবর দিলে তারা গিয়ে পিনুর লাশ নিয়ে আসে। আয়ান নামে পিনুর ১০ মাসের একটি ছেলে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানায়, এর আগেও রাসেল বিয়ে করেন। ওই সংসারে তার ছয় বছরের একটি সন্তান রয়েছে। রাসেলের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সন্তান রেখেই প্রথম স্ত্রী রাসেলকে তালাক দিয়ে বাপের বাড়ি চলে যায়। সম্প্রতি আগের স্ত্রীর সাথে রাসেল আবারও যোগাযোগ করতে থাকে। এ নিয়ে পিনুর সাথে রাসেলের প্রায় সময় ঝগড়া বিবাদ হতো।

পিনুর ভাই আবু সালমান রাফি জানান, তার বোন পিনুকে রাসেল পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে নাটক সাজিয়েছে। তার বোনের শরীরের বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। যৌতুকের জন্য এবং সাবেক স্ত্রীর প্ররোচনায় পিনুকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

রাসেলের খালা পিংকি বেগম শনিবার সংবাদমাধ্যমকে জানান, রাসেল দুপুর বেলায় স্ত্রী পিনুর সাথে ঝগড়া করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। সন্ধ্যায় রাসেল বাড়ি ফিরে দেখে তার রুমের দরজা বন্ধ। রুম থেকে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে পিনুকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখে রাসেল।

চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, ‘সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় পিনু আত্মহত্যা করেছে। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের কারণেই সে আত্মহত্যা করেছে। আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় মেয়ের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত রাসেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে'।