বাবা-ছেলের নামে মামলা রয়েছে ১২টি। এর মধ্যে সাজা হয়েছে ১০টিতে। বাবার ৪ বছর ও ছেলের ৩ বছর এক মাস। এ সাজা থেকে বাঁচতে বাবা-ছেলে আত্মগোপনে ছিলেন ১২ বছর।

অবশেষে রোববার গভীর রাতে ঢাকার ধানমন্ডি এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করেছে চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেন চুয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন।

গ্রেপ্তার দুইজন হলেন - চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হাজরাহাটি গ্রামের প্রয়াত করম আলী মুন্সীর ছেলে রুহুল আমিন (৬৭) ও তার ছেলে সামসুজ্জান ওরফে বাপ্পি (৩২)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বাবা-ছেলের নামে ১২টি মামলার সবগুলোই চেক প্রতারণার। এসব মামলার ৪টিতে বাবার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মেয়াদে মোট চারবছর কারাদণ্ড ও ৫৮ লাখ টাকা জরিমানা এবং ছেলের বিরুদ্ধে ৬টি মামলায় বিভিন্ন মেয়াদে মোট তিনবছর একমাস কারাদণ্ড ও ২৯ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দেন আদালত। এরপর থেকেই তারা পলাতক ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে ঢাকার ধানমণ্ডি এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ১২টির মধ্যে ১০ টিতে সাজা হলেও বাকি দুটি মামলা এখনো বিচারাধীন রয়েছে।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন আরও বলেন, সোমবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালত তাদের জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।