পুল সহকারীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) উপপ্রধান পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম চৌধুরীকে ৪ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন চালকরা।

সোমবার সিটি করপোরেশনের সাগরিকা স্টোরে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। এদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত তাকে অবরুদ্ধ রাখা হয়। পরে সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মীমাংসার আশ্বাসে এবং পুলিশের উপস্থিতিতে তাকে ছেড়ে দেন তারা।

সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বর্তমানে দাপ্তরিক কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তিনি ঢাকা থেকে ফিরলে বিষয়টি আলোচনা করে মীমাংসা করা হবে বলে জানান কর্মকর্তারা।

সিটি করপোরেশনের পুল সহকারী মো. নূর নবী জানান, নগরে খাল খননের জন্য পাঁচটি স্থানে দশটি গাড়ি দেওয়া হয়েছিল। সকাল পৌনে ১০টায় আরও চার-পাঁচটি গাড়ি দিতে বলেন মোরশেদুল আলম৷ কিন্তু গাড়ি ছিল না। বিষয়টি জানালে তিনি ওয়াকিটকিতে গালিগালাজ শুরু করেন। এরপর তিন-চারজনকে সঙ্গে নিয়ে অফিসে এসে হুমকি ধামকি দিতে থাকেন।

তিনি আরও জানান, তার আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে চালকরা বিক্ষোভ শুরু করেন। পরবর্তীতে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশ্বাসে ও পুলিশের উপস্থিতি তিনি সাগরিকা স্টোর ত্যাগ করেছেন। এই ঘটনায় ওই কর্মকর্তার শাস্তি চান তারা

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে মোরশেদুল আলম বলেন, নগরের ফইল্ল্যাতলী বাজার এলাকায় খাল পরিষ্কারের কাজ চলছে। এ জন্য ময়লা পরিবহনের জন্য চারটি ডাম্প ট্রাক দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সকালে কোনো ট্রাক দেওয়া হয়নি। বিষয়টি জানার জন্য সাগরিকা স্টোরে যান। এ সময় পুল সহকারী মো. নূর নবী চালকদের ডেকে এনে হইচই শুরু করে দেন। এরপর তিনি সেখান থেকে চলে আসেন।

সিটি মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম বলেন, উপপ্রধান পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম একজন পুল সহকারীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করার অভিযোগে ক্ষুব্ধ চালকেরা তাকে এক প্রকার ঘেরাও করেন। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।